• শিরোনাম

    দৈনিক খুলনা

    দি গাংচিল ডেস্ক | ১১ আগস্ট ২০২০


    দৈনিক খুলনা

    নগরীতে যুবকের মরদেহ উদ্ধার মরদেহ উদ্ধার

    নগরীর লবণচরার পশ্চিমে সুঁড়িখাল মোড় থেকে অজ্ঞাতপরিচয় এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার সকাল ৮টার দিকে রাস্তার পাশ থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।


    লবণচরা থানার অফিসার ইনচার্জ সমীর কুমার সরকার জানান, স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে। নিহত যুবকের মুখ স্কচটেপ দিয়ে আটকানো এবং গলায় কাপড় প্যাঁচানো রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে অন্য কোথাও হত্যা করে মরদেহটি এখানে ফেলে দেওয়া হয়েছে।

    সড়ক দুর্ঘটনায় আবু নাসের হাসপাতালের হিসাবরক্ষক ও কেয়ারটেকার নিহত


    খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের পাটকেলঘাটা থানাধীন মির্জাপুর এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় খুলনার শহীদ শেখ আবু নাসের হাসপাতালের হিসাবরক্ষক রোকনুজ্জামান লিটু ও ইন্সট্রুমেন্ট কেয়ারটেকার সাকিব হোসেন নিহত হয়েছেন। রবিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই ওই দুজন মারা যান।

    পাটকেলঘাটা থানার এসআই সুব্রত জানান, মির্জাপুর বাজারের কিছু সামনে শ্মশানঘাট এলাকায় একটি ট্রাক দাঁড়িয়েছিল। এ সময় সাতক্ষীরাগামী একটি মোটরসাইকেল দ্রুতগতিতে ছুটে এসে ট্রাকটির সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল আরোহী দুজন মাথায় আঘাত লেগে মারা যান। পরে পাটকেলঘাটা থানা পুলিশ মরদেহ ও মোটরসাইকেল উদ্ধার করে খর্নিয়া হাইওয়ে থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করে।


    তিনি আরও বলেন, মোটরসাইলেকের চালক ছিলেন সাকিব হোসেন। তার মাথায় মারাত্মক জখম হয়েছে। তাদের পকেট সার্চ করে কোনো ধরনের কাগজপত্র বা ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়া যায়নি।

    ডুমুরিয়ায় ভোক্তা অধিকারের বাজার তদারকিতে ৪টি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

    ডুমুরিয়া উপজেলার ডুমুরিয়া বাস স্ট্যান্ড রোডে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের খুলনা জেলা কার্যালয়ের বাজার তদারকিতে ৪টি প্রতিষ্ঠানকে ১০হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শিকদার শাহীনুর আলম জরিমানার আদেশ প্রদান করেছেন।

    জেলা কার্যালয় সুত্রে জানা যায়, এই অভিযানে ডুমুরিয়া বাসস্ট্যান্ড রোডে মূল্যবিহীন কসমেটিকস ও স্যাভলনের মূল্য তুলে ফেলায় হালদার স্টোরকে ৫হাজার, বরকত স্টোরকে এক হাজার ও ডুমুরিয়া বাজারে বিসমিল্লাহ বেকারীকে ২হাজার ও মিলন টেলিকমকে ২হাজার টাকা প্রশাসনিক ব্যবস্থায় জরিমানা করা হয়। অভিযানে সহযোগিতা করেন ৩ এপিবিএন ও ডুমুরিয়ার স্যানিটারি ইন্সপেক্টর। জনস্বার্থে এ অভিযান চলমান থাকবে।

    খুলনা মহানগরীকে পরিকল্পিতভাবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি: কেসিসি মেয়র

    খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, খুলনা মহানগরীকে পরিকল্পিতভাবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি। এজন্য সড়ক ও ড্রেনসমূহের উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে উন্নয়ন কাজের ধারাবাহিকতা বাধাগ্রস্থ হয়েছে উল্লেখ করে সিটি মেয়র বলেন, স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের মাধ্যমে আবারও উন্নয়ন কাজ শুরু করা হবে। সিটি মেয়র সোমবার বেলা ১১টায় নগর ভবনের জিআইজেড মিলনায়তনে ‘‘খুলনা সিটি কর্পোরেশনের গুরুত্বপুর্ণ ও ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তা উন্নয়ন ও পুনর্বাসন’ প্রকল্পের পরামর্শক প্রতিষ্ঠান খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) প্রতিনিধিদের সাথে অনুষ্ঠিত সভায় এ কথা বলেন। সিটি মেয়র আরো বলেন নগরীর পরিধি ক্রমশ: বৃদ্ধি পাচ্ছে। বর্ধিত অংশের সাথে সংগতি রেখে উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়ন করা দরকার। এ জন্য তিনি কুয়েটসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

    কুয়েট-এ উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহা: সাজ্জাদ হোসেন, কেসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (যুগ্ম সচিব) পলাশ কান্তি বালা, পরামর্শক সংস্থার প্রতিনিধি প্রফেসর রোকন উজ্জামান, কেসিসি’র প্রধান প্রকৌশলী মো: এজাজ মোর্শেদ চৌধুরী, নির্বাহী প্রকৌশলী লিয়াকত আলী খান, মশিউজ্জামান খান, চীফ প্লানিং অফিসার আবির উল জব্বার, সহকারী প্রকৌশলী শেখ মোহাম্মদ হোসেন, মো: মাসুদ করিম প্রমুখ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

    নৌবাহিনীর ত্রাণ বিতরণ ও জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম

    খুলনা, ১০ আগস্ট ২০২০ সোমবার করোনা ভাইরাস এর সংক্রমণ রোধকল্পে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে ও বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে উপকূলীয় অঞ্চলে নিয়মিত টহল করছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী। নৌবাহিনী কন্টিনজেন্ট মোংলা উপজেলার সোনাইতলা ইউনিয়নে স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় ৩৩১টি দুস্থ পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণে সহায়তা প্রদান করে। এছাড়া মোংলা উপজেলার সোনাইতলা, হলদিবুনিয়া, দিগরাজ বাজার, আপাবাড়ি, মামারঘাট ও ফেরিঘাট এলাকায় নিয়মিত সচেতনতামূলক টহল প্রদান করে। জনগণের মাঝে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয় ও বর্জনীয় শীর্ষক লিফলেট বিতরণ করে। মোতায়েনকৃত নৌ কন্টিনজেন্ট বরগুনা সচেতনতামূলক টহল পরিচালনার পাশাপাশি সাধারণ জনগণকে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চতকরণ, গণপরিবহন ব্যবহাে রর ক্ষেত্রে মাস্ক ব্যবহার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয়ে মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করছে। উপজেলাসমূহের বিভিন্ন এলাকায় কোভিড-১৯ প্রতিরোধ সর্ম্পকিত ১৬০টি লিফলেট বিতরণ করে। নৌ কন্টিনজেন্ট দু’টি জেলা প্রশাসনের বিভিন্ন কার্যক্রমে সহায়তা প্রদানসহ করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সর্ম্পকিত বিভিন্ন ব্যানার স্থাপন, অসহায় ও দুস্থ পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ এবং জনসচেতনতামূলক বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

    ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সোনাডাঙ্গা থানা শাখার ঈদ পূণর্মিলনী

    সোমবার দুপুর ২ টায়, দলীয় কার্যালয়ে, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সোনাডাঙ্গা থানা শাখার “ঈদ পূণর্মিলনী অনুষ্ঠান” অনুষ্ঠিত হয়। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সোনাডাঙ্গা থানা শাখার সভাপতি মুফতী ইমরান হুসাইনের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি মোলা রবিউল ইসলাম তুষারের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগরীর সভাপতি আলহাজ্ব মুফতী আমানুল্লাহ, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগরীর সহ-সভাপতি মুফতী মাহবুবুর রহমান, সেক্রেটারী শেখ মুহা. নাসির উদ্দিন, প্রশিক্ষণ সম্পাদক শেখ মুহা. আমীরুল ইসলাম। উপস্থিত ছিলেন থানার সিনিয়র সহসভাপতি আলহাজ্ব আমজাদ হোসেন, ইব্রাহীম খাঁ, মোঃ আবু হানিফ, নূরুজ্জামান বাবুল, মোঃ হুমায়ূন কবীর, মাও সোহরাব হোসন, ক্বারী মোর্শেদ, আলহাজ্ব মারুফ রহমান, মোঃ আঃ সোবহান, আলহাজ্ব শেখ আঃ জব্বার, মোঃ শাহিন, ডাঃ আয়নাল মোল্যা, মোঃ আঃ মান্নান, ডাঃ এস এম এমদাদুল হক, মোঃ আঃ সালাম, মোঃ ইকরাম শেখ, মোঃ হাবিবুর রহমান, মোঃ আবূ হানিফ ব্যাপারী, মোঃ আবূ হানিফ ভান্ডার, মোঃ মোস্তফা জামান, মোঃ কবির হোসেন সহ প্রমূখ নেতৃবৃন্দ৷

    সাতক্ষীরায় করোনা উপসর্গ নিয়ে একজনের মৃত্যু: সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও তিন চিকিৎসকসহ ৪৭ জনের করোনা শনাক্ত

    জ¦র ও শ্বাসকষ্টসহ করোনার উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। সোমবার সকালে তিনি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মারা যান। মৃতের নাম ফাতেমা খাতুন (৬১)। তিনি কালিগঞ্জ উপজেলার বাজারগ্রামের আফতাব আলীর স্ত্রী। মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডাঃ রফিকুল ইসলাম জানান, জ¦রও শ্বাসকষ্টসহ করোনার উপসর্গ নিয়ে গত ২৮ জুলাই বিকেলে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি হন কালিগঞ্জের বাজারগ্রামের বৃদ্ধা ফাতেমা খাতুন। পরদিন তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য যশোর প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়। এরপর সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সকাল সাত টার দিকে তিনি মারা যান। এখনও পর্যন্ত তার নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়া যায়নি। তিনি আরো জানান, স্বাস্থ্য বিধি মেনে তার লাশ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। একই সাথে লকডাউন করা হয়েছে তার বাড়ি। সাতক্ষীরায় করেনার উপসর্গ নিয়ে আজ পর্যন্ত মারা গেছেন অন্তত ৬০ জন। আর করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরো ২৩ জন।

    এদিকে, গত ২৪ ঘন্টায় সাতক্ষীরায় নতুন করে সদর উপজেলার চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবুসহ তার পরিবারের ৪ জন, তিন জন চিকিৎসক ও দুই জন স্বাস্থ্যকর্মীসহ ৪৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় আজ পর্যন্ত মোট ৮৩৯ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। সোমবার সকালে পিসিআর ল্যাব থেকে পাওয়া নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে উক্ত ৪৭ জনের করোনা পজিটিভ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য বিভাগ। সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন ডাঃ হুসাইন শাফায়াত বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আজ পর্যন্ত এ জেলা থেকে মোট ৪ হাজার ২৪৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়। ইতিমধ্যে ৩ হাজার ২৪৮ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট সিভিল সার্জন কার্যালয়ে এসে পৌছেছে। এর মধ্যে ৮৩৯ জনের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজেটিভ ও বাকী সব নেগেটিভ এসেছে। এছাড়া ৬০৭ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। তিনি আরো জানান, ইতিমধ্যে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের বাড়ি লক ডাউন করা হয়েছে।

    শৈলকুপা আউশিয়া আইডিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে চলছে অনিয়ম দুর্ণীতির মহোউৎসব

    ক্ষমতার দাপট আর নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে শৈলকুপা আউশিয়া আইডিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে চলছে অনিয়ম দুর্ণীতির মহোউৎসব। নামে বেনামে রয়েছে সহকারি শিক্ষক, লাইব্রেরিয়ান ও অফিস সহকারি। ম্যানেজিং কমিটির প্রভাব দেখিয়ে ব্যক্তিগত ভাবে সভাপতি পরিচয় দিয়ে প্রতিষ্ঠানের বারোটা বাজিয়ে দিচ্ছে। নিয়োগ বিজ্ঞপির ছলচাতুরি করে আসছে ম্যানেজিং কমিটি। সকালে একপদ বিকেলে অন্য পদ দেখিয়ে চলছে প্রতিষ্ঠানটি। আর এই সুযোগে হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে মোটা অংকের টাকা। ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে প্রতিষ্ঠান। লাভবান হচ্ছে অন্যরা।

    খোজ নিয়ে জানা গেছে, শৈলকুপা আউশিয়া আইডিয়াল মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি ২০০০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। ২০০৫ সালে বিদ্যালয়টিতে আব্দুল বারিক নামের এক ব্যক্তি অফিস সহকারি পদে কর্মরত অবস্থায় মারা যান। পরে একই বছরে ওই পদে যোগদান করেন সাবিনা ইয়াসমিন নামের এক নারী। কিন্তু ২০০৮ সালে সাবিনা ইয়াসমিনকে অফিস সহকারি পদ থেকে সরিয়ে লাইব্রেরিয়ান পদে মৌখিকভাবে চাকুরি দেওয়া হয়। পরে ২০১৫ সালে আবারও সাবিনা ইয়াসমিনকে মৌখিকভাবে সহকারি শিক্ষিকা পদে রাখা হয়। এ বিষয়ে সাবিনা ইয়াসমিন প্রতিবাদ করলে ম্যানেজিং কমিটির যোগসাজসে চাপ সৃষ্টি করে আসছে প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও প্রধান শিক্ষক কাজল রেখার নিয়োগের বৈধতা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। আরও অভিযোগ উঠেছে বৈশ্বিক মহামারি করোনা কালীন সময় যে সকল শিক্ষক নিয়মিত প্রতিষ্ঠানে এসেছে তাদের নাম তালিকা থেকে বাদ দিয়ে অনিয়মিতদের নাম তালিকা করে পঠানো হয়েছে।

    এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী সাবিনা ইয়াসমিন অভিযোগ করে বলেন, আমি ২০০৫ সালে উক্ত প্রতিষ্ঠানে অফিস সহকারি পদে যোগদান করি। যোগদানের পর থেকে বিদ্যালয়ের সকল কর্মকান্ডে নিয়মিত অংশ গ্রহণ করে আসছি, যা প্রতিষ্ঠানসহ ওই এলাকার সকলে অবগত আছেন। ২০০৮ সালে আমাকে উক্ত পদ থেকে সরিয়ে প্রতিষ্ঠানের তৎকালীন সভাপতি মনোয়ার হোসেন মালিথার ২য় স্ত্রীকে অফিস সহকারি পদে বহাল দেখিয়ে আমাকে লাইব্রেরিয়ান পদে মৌখিকভাবে যোগদান করায়। পরে ২০১৫ সালে আবারও আমাকে উক্ত পদ থেকে সরিয়ে বর্তমান প্রধান শিক্ষক কাজল রেখার এক আত্মীয়কে নিয়োগ দেয়। সেসময় আমাকে লাইব্রেরিয়ান পদ থেকে সহকারি শিক্ষক পদে মৌখিকভাবে প্রতিষ্ঠানে রাখা হয়। আমি এ বিষয়ে সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত দোষিকে শাস্তি ও উক্ত বিষয়ের প্রতিকার চেয়ে ঝিনাইদহ জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বরাবর মৌখিক অভিযোগ দাখিল করেছে।

    এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক কাজল রেখা বলেন, সকল বিষয় আমার জানা আছে। আমি সবকিছুই সভাপতিকে জানিয়ে করেছি। এরমধ্যে অনেক কাজই ভুল হতে পারে। বৈশ্বিক মহামারি করোনা কালীন সরকারি অনুদানের টাকা গুলো শিক্ষক সাবিনা ইয়াসমিনকে দেওয়া হয়নি। এটি আমার গুরুতর অনিয়ম হয়েছে। আমি এগুলো দ্রুতই সেরে ফেলবো। দয়া করে আপনার এই সংবাদটি পত্রিকায় প্রকাশ না করলে আমার জন্য ভাল হয়। স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মনোয়ার হোসেন মালিথা বলেন, আমার প্রতিষ্ঠানে সবকিছুই আমি নিয়ম তান্ত্রিকভাবে করেছি। আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা সঠিক নয়। এ ব্যাপারে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সুশান্ত কুমার দেব বলেন, এটা একটি নন এমপিও ভুক্ত প্রতিষ্ঠান। এসকল প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষ একটু সুযোগ নিয়ে থাকে। তবে এ ব্যাপারে আমার কাছে এখনও পর্যন্ত কোন অভিযোগ আসেনি। যদি আসে তাহলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

    করোনা স্বাস্থ্য বিধি না মানায় মোংলায় ২২টি মামলা ও ৫১০০ টাকা জরিমানা আদায়

    করোনাকালীন সময়ে স্বাস্থ্য বিধি মানার সরকারী নির্দেশনা অমান্য করে মোংলায় রাস্তাঘাটে মাস্ক না পরা ও সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখায় ২২টি মামলা দায়েরসহ পাঁচ হাজার একশত টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত মোংলা পৌর শহরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালায় নৌবাহিনী। এ সময় স্বাস্থ্য বিধি অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের ও জরিমানা আদায়ের নির্দেশ দেন উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) নয়ন কুমার রাজবংশী। তিনি বলেন, স্বাস্থ্য বিধি অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে নিয়মিত এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

    জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শিশু একাডেমির প্রতিযোগিতা

    হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি ও স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ শিশু একাডেমি খুলনা জেলা কার্যালয় চিত্রাংকন ও কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে। চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার ছবি বাড়ি থেকে একেঁ আগামী ১২ আগস্ট দুপুর ১২ টার মধ্যে খুলনা শিশু একাডেমির কার্যালয়ে জমা দিতে হবে। ১৩ আগস্ট সকাল সাড়ে ১০টায় খুলনা শিশু একাডেমিতে সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

    চিত্রাংকন প্রতিযোগিতায় তিনটি বিভাগ যথাক্রমে- ‘ক’ বিভাগ প্লে থেকে দ্বিতীয় শ্রেণি পর্যন্ত, ‘খ’ বিভাগে তৃতীয় থেকে পঞ্চম এবং ‘গ’ বিভাগে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করতে পারবে। ক বিভাগের বিষয় ও মাধ্যম উন্মুক্ত, খ ও গ বিভাগের বিষয়: ‘বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশ’। সকল বিভাগের মাধ্যম উন্মুক্ত।

    কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় ‘ক’ বিভাগ প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য নির্ধারিত কবিতা ‘মুজিব ফিরে আসে’ এবং ‘খ’ বিভাগ ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য নির্ধারিত কবিতা ‘মুছে ফ্যালো মিছে অশ্রু তোমার’।

    চিত্রাংকন প্রতিযোগিতায় ১১ বাই ১৬ ইঞ্চি মাপের কার্টিজ পেপারে ছবি আঁকতে হবে। ছবির পিছনে নিজের নাম, পিতার নাম, মাতার নাম, শ্রেণি, প্রতিষ্ঠানের নাম ও মোবাইল নম্বর উল্লেখ করতে হবে। একজন প্রতিযোগী একাধিক বিষয়ে অংশগ্রহণ করতে পারবে না। আগামী ১৫ আগস্ট সকাল ১০ টায় খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হবে।

    মণিরামপুরে সাপের কামড়ে শিশুর মৃত্যু

    যশোরের মণিরামপুরে বিষধর সাপের কামড়ে হামিম নামে সাড়ে তিন বছরের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। রোববার (৯ আগষ্ট) দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার কদমবাড়িয়া গ্রামে এঘটনা ঘটে। শিশুটি ওই গ্রামের ইয়াসিন হোসেনের ছেলে।

    ইয়াসিন হোসেন বলেন, রাত সাড়ে আটটার দিকে হামিমকে নিয়ে আমার স্ত্রী ঘরে খাটের উপর শুয়ে ছিলেন। হঠাৎ নড়াচড়া দিয়ে ওঠে হামিম। তখন খাটের উপর থেকে একটি সাপ (পাথুরে কালাস) নেমে যেতে দেখা যায়। ছেলেকে সাপে কেটেছে ভেবে রাতে তাকে বিভিন্ন কবিরাজের বাড়ি নিয়ে যাই। সবাই বিষ নেই বলে আমাদের ফিরিয়ে দিয়েছেন। পরে রাত আড়াইটার দিকে হামিমের মৃত্যু হয়। স্বজনদের ধারণা, কোন এক ফাঁকে সাপটি শিশুটির প্যান্টের মধ্যে ঢুকে তার মলদ্বারে কামড় দিয়েছে। এদিকে খবর পেয়ে সোমবার সকালে মণিরামপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাজমা খানম শিশুটির বাড়ি গিয়ে স্বজনদের সমবেদনা জানান। এসময় তিনি পরিবারটিকে সরকারিভাবে আর্থিক সহায়তার আশ্বাস দেন।

    ২১নং ওয়ার্ড বিএনপি নেতা ফরিদ মোল্লার স্ত্রীর সুস্থতা কামনা

    ২১নং ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোল্লা ফরিদ আহমেদের স্ত্রী তাহমিনা আহমেদ লিপি দীর্ঘদিন অসুস্থ। তার শরীরে বাসা বেঁধেছে পিড়কাকার থাইরয়েড ক্যান্সার। যত দিন যাচ্ছে ততই শারীরিক অবস্থা খারাপ হচ্ছে। এ অবস্থায় ৮ আগস্ট চট্রগ্রাম সিএমএইচ-এ তার অপারেশন করা হয়েছে।

    মোল্লা ফরিদ আহমেদের স্ত্রীর আশুরোগ মুক্তি কামনা করেছেন মহানগর বিএনপির নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, ফরিদের স্ত্রী যেন দ্রুত সুস্থ হয়ে পরিবার নিয়ে আবার স্বাভাবিক জীবন-যাপন করতে পারেন। এই সংকটময় মুহুর্তে আল্লাহ্ যেন তাকে ধৈর্য ধারণ করে সকল কাজ সম্পন্ন করার সাহায্যে দান করেন। নেতৃবৃন্দরা হলেন

    বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য ভাষাসৈনিক এম নুরুল ইসলাম, নগর বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র মনিরুজ্জামান মনি, সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা, মীর কায়সেদ আলী, শেখ মোশাররফ হোসেন, জাফরউলাহ খান সাচ্চু, জলিল খান কালাম, সিরাজুল ইসলাম, এড. ফজলে হালিম লিটন, স ম আব্দুর রহমান, শেখ ইকবাল হোসেন, শেখ জাহিদুল ইসলাম, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, শেখ আমজাদ হোসেন, অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, সিরাজুল হক নান্নু, মোঃ মাহবুব কায়সার, নজরুল ইসলাম বাবু, আসাদুজ্জামান মুরাদ, এসএম আরিফুর রহমান মিঠু ও ইকবাল হোসেন খোকন প্রমুখ।

    তালায় সড়ক দূর্ঘটনায় দুই জন নিহত

    তালা উপজেলার খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের পাশে রাখা ট্রাকে ধাক্কা লেগে মটর সাইকেল চালক ও আরোহী ঘটনাস্থলে নিহত হয়েছে। রবিবার (৯ আগষ্ট) রাত্র আনুমানিক ১১ টার সময় পাটকেলঘাটা থানার মির্জাপুর বাজার সংলগ্ন মহাশ্মশানের পাশে মহাসড়কের উপর এ দূর্ঘটনাটি ঘটে। নিহতরা হলেন, খুলনা আবু নাসের হাসপাতালের হিসাবরক্ষক খুলনা জেলার বটিয়াঘাটা উপজেলার কৃষ্ণনগর জলমা গ্রামের আব্দুল লতিফ খানের ছেলে কে এম রোকানুজ্জান লিটু মোল্যা (৪৫) ও খুলনা জেলার দিঘলিয়া উপজেলার ব্রাম্মগাতি গ্রামের মৃত এস এম, বিল্লাল হোসেনের ছেলে খুলনা আবু নাসের হাসপাতালের অফিস সহকারি এসএম শাকিব হোসেন (৩৭)। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মির্জাপুর বাজারে মহাসড়কের উপর রাখা ট্রাকে হঠাৎ সাতক্ষীরাগামী একটি মটর সাইকেল (ফিজার ১৫০ সিসি) দ্রুত গতিতে এসে ট্রাকের পিছনে ধাক্কা দেয়। এসময় ঘটনাস্থলেই দু জন মারা যায়।

    পাটকেলঘাটা থানা অফিসার ইনচার্জ(ওসি) কাজী ওয়াহিদ মুর্শেদ জানান, লাশ উদ্ধার করে হাইওয়ে পুলিশে হস্তাস্তর করা হয়েছে। এ সময় ট্রাকটিও জব্দ করা হয়।

    জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের অগ্রগতির ধারা অব্যহত রাখতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে: খসরু

    সোমবার বিকাল ৫টায় হোটেল ক্যাসল সালাম এর সভা কক্ষে স্বাস্থ্য বিধিমেনে খুলনা জেলা ও মহানগর শ্রমিক লীগের এক যৌথ মতবিনিয়ম সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব কে এম আযম খসরু। সভায় সভাপতিত্ব করেন খুলনা মহানগর শ্রমিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃ মোতালেম মিয়া। উক্ত সভা পরিচালনা করেন খুলনা জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ মোঃ পীর আলী। বক্তব্য রাখেন, খুলনা মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক রনজিত কুমার ঘোষ। উপস্থিত ছিলেন মল্লিক নওশের আলী, মোঃ বাবুল হোসেন, এস এম আসাদুজ্জামান আসাদ, মোল্লা মাহাবুবুর রহমান, আঃ রহিম খান, মোঃ শহীদ মোল্লা, মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, মোল্লা আজাদ আলী, আঃ রশিদ শিকদার, কিংকর সাহা, মোঃ জয়নাল আবেদীন, মোঃ আসাদুজ্জামান মুন্না, শরীফ মোর্ত্তজা আলী, মোঃ ইউনুস মুন্সী, মোঃ আলাউদ্দিন, মোঃ ফারুক হাওলাদার, মোঃ মতিয়ার রহমান, মোঃ ময়নুল ইসলাম মোহন, শেখ মোঃ রমজান, কামরুল গাজী, মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন, মোঃ জামাল হোসেন, নাসরিন আখতার, শেখ মোঃ আবু হান্নান, এস এম ইমরুল আলম, মোঃ জাবেদ মিয়া, বিপ্লব কুমার দে, মোঃ আজিম উদ্দিন, বায়জিদ সরদার, মোঃ সোহাগ হাওলাদার, মোঃ হাই ইসলাম কচি, মোঃ মনিরুল ইসলাম, সেলিম ফরাজী, মোঃ ফারুক হোসেন, মোঃ জাহিদ, খোকন শীল কুট্টি, মোঃ রনি মোল্লা, বিপ্লব রয়, আক্কেল আলী, সোহেল, শামীম প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

    সভায় ১৫ আগস্টে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ তার পরিবারের যে সকল সদস্যবৃন্দ শহীদ হয়েছিলেন তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন ও তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন নেতৃবৃন্দ। সভায় প্রধান অতিথি বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারের আমলে বাংলাদেশের প্রত্যেকটি সেক্টরের উন্নয়ন সাধিত হচ্ছে যার কারণে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে পরিনত হয়েছে এবং এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকলে খুব তাড়াতাড়ি উন্নত দেশ হিসেবে পরিনত হবে বাংলাদেশ। তিনি আরো বলেন তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে তার হাতকে শক্তিশালি করার জন্য খুলনা জেলা ও মহানগর শ্রমিক লীগের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে হবে।

    সভায় খুলনা রেলওয়ে শ্রমিক লীগের সভাপতি মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন এর নামে যে মিথ্যা অপপ্রচার করা হচ্ছে তার তীব্রনিন্দা ও প্রতিবাদ করেন এবং নেতৃবৃন্দ বলেন এই মিথ্যা অপপ্রচার করে খুলনা রেলওয়ে শ্রমিক লীগকে দুর্বল করা যাবে না। রেলওয়ে শ্রমিক লীগের সাথে জাতীয় শ্রমিক লীগের অর্ন্তরভুক্ত সকল সংগঠনের নেতাকর্মীরা আছেন।

    করোনা সংক্রমণ রোধে সিপিবি’র প্রচারাভিযান

    করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ১০ আগস্ট থেকে দেশব্যাপী প্রচারাভিযান বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) খুলনা জেলা ও মহানগরীর উদ্যোগে প্রচারপত্র ও মাস্ক বিতরণ এবং গনসচেতনা কর্মসূচি সোমবার বিকেলে অনুষ্ঠিত হয়। নগরীর পিকচার প্যালেস মোড়, ডাকবাংলা মোড়, কে রোডসহ বিভিন্ন এলাকায় পথসভা-প্রচারাভিযান করেন নেতৃবৃন্দ। এ সময়ে নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সদস্য ও জেলা সভাপতি ডাঃ মনোজ দাশ, মহানগর সভাপতি এইচ এম শাহাদাৎ, জেলা সাধারণ সম্পাদক এড. রুহুল আমিন, মহানগর সাধারণ সম্পাদক এড. মোঃ বাবুল হাওলাদার, জেলা ও মহানগর নেতা সুতপা বেদজ্ঞ, বীর মুক্তিযোদ্ধা নিতাই পাল, কিংশুক রায়, যুব ইউনিয়ন নেতা প্রভাষক জয়ন্ত মুখার্জী, আফজাল হোসেন রাজু, ডাঃ গৌরাঙ্গ সমাদ্দার প্রমুখ। নেতৃবৃন্দ বলেন, সর্বসাধারণের জন্য কোভিড টেস্ট ফ্রি, কোভিড টেস্টের জন্য স্যাম্পেল কালেকশন এবং রিপোর্ট প্রাপ্তিতে দীর্ঘসূত্রিতা ও হয়রাণি বন্ধ, চিকিৎসক-নার্স-স্বাস্থ্যকর্মীদের পর্যাপ্ত সুরক্ষা সামগ্রী সরবরাহ করে মানসম্মত চিকিৎসা নিশ্চিত, কমিউনিটি কিনিকসহ সকল চিকিৎসা কেন্দ্র সচল করে সাধারণ চিকিৎসা নিশ্চিত, বেসরকারি কিনিক ও হাসপাতালে বাড়তি চিকিৎসা ফি আদায় বন্ধ করতে হবে।

    করোনাকালে সুন্দরবনে মধু আহরণ প্রায় দ্বিগুণ

    করোনাভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যে সুন্দরবনে মধু আহরণ বেড়েছে। সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের হিসাবে এবার ১ হাজার ২২০ কুইন্টাল মধু আহরণ করেছেন মৌয়ালর, যা আগের অর্থবছরের তুলনায় দ্বিগুণের কাছাকাছি। মধুর সঙ্গে বেড়েছে মোমের উৎপাদনও। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বড় একটি সময় বন্ধ ছিল সুন্দরবনে দর্শনার্থী প্রবেশে। এই নিষেধাজ্ঞার ফলে মানুষের অযাচিত বিরক্তের হাত থেকে মুক্ত ছিল সুন্দরবনের বৃক্ষ ও প্রাণিকুল। ফলে বনের অভ্যন্তরীণ পরিবেশ ভালো হয়েছে, বেড়েছে বৃক্ষরাজির ঘনত্ব। বেড়েছে মৌমাছিসহ অনেক প্রাণীর আবাসস্থলও। ফলে এ বছর মধু ও মোমের উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে। সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯-২০ অর্থবছরে সুন্দরবন থেকে মৌয়ালরা মধু আহরণ করেছেন ১ হাজার ২২০ কুইন্টাল। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে যা ছিল ৭৪২ কুইন্টাল। এর আগে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে মধুর উৎপাদন ছিল ৪৮৮ কুইন্টাল। এতে বন বিভাগের রাজস্বও বেড়েছে। ২০১৯-২০ অর্থবছরে মধু থেকে সুন্দরবন পূর্ব বিভাগে রাজস্ব এসেছে ৯ লাখ ১৫ হাজার ৩৭৫ টাকা। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে যা ছিল ৫ লাখ ৫৬ হাজার ৮৭৫ টাকা এবং ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ৩ লাখ ৯৩ হাজার ৪৮০ টাকা।

    মধুর সঙ্গে সঙ্গে বেড়েছে মোমের উৎপাদনও। ২০১৯-২০ অর্থবছরে সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগে ৩৬৬ কুইন্টাল মোম উৎপাদন হয়েছে, যা থেকে বন বিভাগের রাজস্ব আদায় হয়েছে ৩ লাখ ৬৬ হাজার ১৫০ টাকা। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে যা ছিল ২২৯ কুইন্টাল। রাজস্ব আয় হয় ২ লাখ ২৯ হাজার ৬০০ টাকা। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে মোমের উৎপাদন ছিল আরও কম। মাত্র ১৫৮ কুইন্টাল এবং রাজস্ব আদায় হয়েছিল ১ লাখ ৫৮ হাজার ৪৫৩ টাকা। সুন্দরবন পূর্ব বিভাগে পাস নিয়ে মধু আহরণ করেন মৌয়াল লুৎফর রহমান। তাঁর দাবি, বনে মানুষের যাতায়াত কমায় গাছের ঘনত্ব বেড়েছে। ফলে মৌমাছিরা আগের চেয়ে বেশি চাক (বাসা) বানাচ্ছে। তাই এবার মধু ও মোম অনেক বেশি পাওয়া গেছে। সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মোহাম্মাদ বেলায়েত হোসেন বলেন, সুন্দরবনে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকায় বনের পরিবেশ ভালো হয়েছে। বনের অনেক জায়গায় গাছের ঘনত্ব বেড়েছে।

    বেলায়েত হোসেন বলেন, প্রকৃতিকে নিজের মতো থাকতে দিলে তা প্রাণ ফিরে পায়। দর্শনার্থীর চাপ না থাকায় বনের পশুপাখি, পতঙ্গরাও অবাধ বিচরণ করছে। এতে সুন্দরবনে মৌমাছিসহ সব প্রাণীর আবাসস্থল বৃদ্ধি পেয়েছে। এ কারণেই ২০১৯-২০ অর্থবছরে সুন্দরবনে মধু ও মোমের উৎপাদন বেড়েছে।

    পাটকল রক্ষায় সম্মিলিত নাগরিক পরিষদের মতবিনিময় সভা

    পাটকল রক্ষায় সম্মিলিত নাগরিক পরিষদ, খুলনা’র উদ্যোগে ‘পাটশিল্পের বর্তমান প্রেক্ষিত এবং নাগরিক ভাবনা’ শীর্ষক মতবিনিময় সভা মঙ্গলবার সকাল ১০টায় খুলনা প্রেস কাবের শহীদ সাংবাদিক হুমায়ুন কবীর বালু (ভিআইপি লাউঞ্জ) মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে। সাংবাদিক সম্মেলনে সচেতন নাগরিক ও সাংবাদিকবৃন্দকে উপস্থিত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন নেতৃবৃন্দ।

    ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সোনাডাঙ্গা থানা শাখার ঈদ পূণর্মিলনী\

    সোমবার দুপুর ২ টায়, দলীয় কার্যালয়ে, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সোনাডাঙ্গা থানা শাখার “ঈদ পূণর্মিলনী অনুষ্ঠান” অনুষ্ঠিত হয়। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সোনাডাঙ্গা থানা শাখার সভাপতি মুফতী ইমরান হুসাইনের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি মোলা রবিউল ইসলাম তুষারের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগরীর সভাপতি আলহাজ্ব মুফতী আমানুল্লাহ, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগরীর সহ-সভাপতি মুফতী মাহবুবুর রহমান, সেক্রেটারী শেখ মুহা. নাসির উদ্দিন, প্রশিক্ষণ সম্পাদক শেখ মুহা. আমীরুল ইসলাম। উপস্থিত ছিলেন থানার সিনিয়র সহসভাপতি আলহাজ্ব আমজাদ হোসেন, ইব্রাহীম খাঁ, মোঃ আবু হানিফ, নূরুজ্জামান বাবুল, মোঃ হুমায়ূন কবীর, মাও সোহরাব হোসন, ক্বারী মোর্শেদ, আলহাজ্ব মারুফ রহমান, মোঃ আঃ সোবহান, আলহাজ্ব শেখ আঃ জব্বার, মোঃ শাহিন, ডাঃ আয়নাল মোল্যা, মোঃ আঃ মান্নান, ডাঃ এস এম এমদাদুল হক, মোঃ আঃ সালাম, মোঃ ইকরাম শেখ, মোঃ হাবিবুর রহমান, মোঃ আবূ হানিফ ব্যাপারী, মোঃ আবূ হানিফ ভান্ডার, মোঃ মোস্তফা জামান, মোঃ কবির হোসেন সহ প্রমূখ নেতৃবৃন্দ৷

    চাল চুরি: আসামিদের জবানবন্দিতে ভাইস চেয়ারম্যানের নাম

    কাজের বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচি (কাবিখা) প্রকল্পের ১৬ মেট্রিক টন ওজনের ৫৫৫ বস্তা চাল চুরির মামলায় যশোরের মনিরামপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান উত্তম চক্রবর্তী জড়িত বলে গ্রেপ্তার হওয়া আসামিদের জবানবন্দিতে উঠে এসেছে। ওই মামলায় গ্রেপ্তার পাঁচজন ইতিমধ্যে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। তাঁদের মধ্যে তিনজন উত্তম চক্রবর্তীর জড়িত থাকার কথা বলেছেন। এদিকে চাল আত্মসাতের ঘটনায় উত্তম চক্রবর্তী জড়িত কি না, তা তদন্ত করে প্রতিবেদন পাঠানোর জন্য স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে জেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়ে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। ইতিমধ্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রফিকুল হাসানকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

    উত্তম চক্রবর্তী স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্যের ভাগনে। অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ভাইস চেয়ারম্যান উত্তম চক্রবর্তী বলেন, ‘অভিযানের সময় পুলিশ চালসহ দুজনকে আটক করেছিল। তাঁরা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে শহিদুল ও জগদীশের নাম বলেছেন। পরে পুলিশ শহিদুল ও জগদীশকে মারধর করে আমার বিরুদ্ধে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নিয়েছে। আমি চাল চুরির বিষয়ে কিছুই জানি না।’

    পুলিশ ও আদালত সূত্র জানায়, গত ৪ এপ্রিল বিকেলে মনিরামপুর উপজেলার বিজয়রামপুর এলাকার ‘ভাই ভাই রাইস মিল অ্যান্ড চাতাল’ নামের একটি চালকলে অভিযান চালান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আহসান উল্লাহ শরিফী ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম। চাতালটির গুদাম থেকে ট্রাকবোঝাই কাবিখা প্রকল্পের ৫৫৫ বস্তা চাল জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় চালকলের মালিক আবদুল্লাহ আল মামুন ও ট্রাকচালক ফরিদ হাওলাদারকে আটক করে পুলিশ। পরে মনিরামপুর থানার উপপরিদর্শক তপন কুমার সিংহ আটক দুজনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতপরিচয়ের আরও কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করেন। পরে তাঁদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়। ওই দুই আসামি আদালতে স্বীকারোক্তিতে আরও তিনজনের জড়িত থাকার কথা জানান। সেই তিনজন হলেন মনিরামপুর উপজেলার বিজয়রামপুর গ্রামের চালকল ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম, জুড়ানপুরের বিদ্যালয়ের প্রহরী জগদিশ দাস ও একই গ্রামের বাসিন্দা আবদুল কুদ্দুস। পরে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁরাও আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

    গত ১০ মে আদালতে দেওয়া জবানবন্দিতে আসামি শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘গত ৩০ মার্চ মনিরামপুর খাদ্যগুদামের সমানে দাঁড়িয়ে চালকলের ব্যবসায়ী আবদুল্লাহ আল মামুন, প্রহরী জগদীশ দাস ও আবদুল কুদ্দুসকে চালসংক্রান্ত আলোচনা করতে দেখি। তখন তাঁরা আমাকে ডেকে সরকারি ১৬ টন চাল বিক্রির কথা জানান। সরকারি চাল বলে আমি কিনতে রাজি হইনি। সেখানে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান উত্তম চক্রবর্তী ও কুদ্দুসের কাছ থেকে ১৬ টন চাল আবদুল্লাহ আল মামুন ৫ লাখ টাকায় কিনে নেবেন বলে কথা হয়েছে। পরে স্থানীয় বাজারে গিয়ে জানতে পারি, ৪ লাখ ৮০ হাজার টাকায় উত্তম চক্রবর্তী ওই চাল আবদুল্লাহ আল মামুনের কাছে বিক্রি করেছেন।’

    ২৭ জুলাই দেওয়া জবানবন্দিতে জগদীশ দাস বলেন, ‘চালকল ব্যবসায়ী শহিদুল ও আমার সামনেই উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান উত্তম চক্রবর্তী আরেক চালকলের মালিক আবদুল্লাহ আল মামুনের কাছে সরকারি ৫৫৫ বস্তা চাল ৪ লাখ ৮০ হাজার টাকায় বিক্রি করেন। উত্তম চক্রবর্তী গত ৩০ মার্চ মামুনের চালকলে গিয়ে চাল বিক্রির ওই টাকা নিয়ে আসেন।’ এর আগে ১৩ জুলাই প্রায় একই ধরনের স্বীকারোক্তি দেন অপর ব্যক্তি আবদুল কুদ্দুস। মামলাটি তদন্তকারী কর্মকর্তা ছিলেন গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মারুফ আহমেদ। তিনি সম্প্রতি বদলি হয়েছেন। নতুন করে তদন্তের জন্য পরিদর্শক সৌমেন দাসকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

    জানতে চাইলে পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন বলেন, মামলাটির তদন্ত চলছে। তদন্তকারী কর্মকর্তা বদলি হওয়ায় নতুন একজন পরিদর্শককে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তদন্ত শেষে দ্রুত সময়ের মধ্যে অভিযোগপত্র দেওয়া হবে। এদিকে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরীণ একটি তদন্ত শুরু করেছে স্থানীয় জেলা প্রশাসন। এ বিষয়ে যশোরের জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান বলেন, সরকারি চাল আত্মসাতের ঘটনায় উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান উত্তম চক্রবর্তী জড়িত কি না, তা তদন্তের জন্য স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রফিকুল হাসানকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

    নিখোঁজ চালকের লাশ পাওয়া গেল সেপটিক ট্যাংকে

    নিখোঁজের ১০দিন পর ইজিবাইকচালক কিশোর ময়নুল রহমানের (১৬) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বাঁকাল এলাকার একটি ইটভাটার সেপটিক ট্যাংক থেকে সোমবার বিকেল ৪টার দিকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ইজিবাইকচালকের বাড়ি সাতক্ষীরা সদর উপজেলার পাঁকরকি গ্রামে। তার বাবার নাম সুরত আলী।

    ময়নুলের চাচা আফসার আলী জানান, ময়নুল প্রতিদিনের মতো ইজিবাইক নিয়ে ৩১ জুলাই সকাল নয়টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়। কিন্তু রাতে আর বাড়ি ফেরেনি। পরদিন বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করে তার কোনো সন্ধান না পেয়ে ১ আগস্ট সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তিনি। সাতক্ষীরা সদর থানার পরিদর্শক বিপ্লব ম-ল জানান, থানায় সাধারণ ডায়েরি করার পর এ ঘটনা নিয়ে অনুসন্ধান শুরু করা হয়। একপর্যায়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আলীপুর গ্রামের হুমায়ন কবীরকে আটক করা হয়। তাঁর স্বীকারোক্তি অনুযায়ী সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বাঁকাল এলাকার আবদুস সবুরের মালিকানাধীন ইটভাটার সেপটিক ট্যাংক থেকে ময়নুল রহমানের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ময়নুলের ইজিবাইকটি শ্রীরামপুর গ্রামের হুমায়ন কবীরের শ্বশুরবাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়। তিনি আরও জানান, ময়নুলের মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে।

    সোহাগ পিতৃস্নেহ পাননি, অনাগত সন্তানেরও একই পরিণতি

    জন্মের এক মাস আগেই পিতৃহারা হয়েছিলেন সোহাগ হোসেন। বাবা তোফাজ্জেল হোসেন দ্বিতীয় বিয়ে করার পর ছেলের খোঁজ রাখেননি। পিতৃস্নেহবঞ্চিত সোহাগ প্রায়ই বলতেন, নিজের সন্তানকে প্রাণভরে আদর করবেন তিনি। সব ঠিক থাকলে আর মাসখানেক পর জন্ম নেবে তাঁর সন্তান। কিন্তু তাঁর সন্তানও বাবার মতোই পরিণতি বরণ করতে যাচ্ছে। বাবার ভালোবাসার ছায়া ছাড়াই বড় হতে হবে সোহাগের সন্তানকে। গত শনিবার চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার সরোজগঞ্জে রয়েল এক্সপ্রেস বাসের ধাক্কায় নিহত ছয়জনের মধ্যে একজন সোহাগ হোসেন (২৫)। নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে সোহাগসহ চারজনেরই বাড়ি তিতুদহ গ্রামে। তাঁরা পেশায় দিনমজুর ছিলেন। সোহাগের কথা বলতে গিয়ে আহাজারি করছিলেন মা আনুরা বেগম। এ সময় মাটির ঘরের মেঝেতে নির্বাক বসে ছিলেন সদ্য স্বামীহারা অন্তঃসত্ত্বা আঁখিতারা খাতুন। সরেজমিনে দেখা যায়, সোহাগের মতোই নিহত শরিফ হোসেন (৩২), শরিফুল ইসলাম ওরফে কালু (৪০) ও রাজু আহম্মেদের (৩৫) বাড়িতে মাতম। পার্শ্ববর্তী খাড়াগোদা গ্রামের ভেটেরিনারি চিকিৎসক মিলন হোসেনের (৪০) জমিতে ধানের চারা লাগানোর উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে দুর্ঘটনায় মারা যান তাঁরা। ওই দুর্ঘটনায় মারা যান মিলন হোসেন ও বসু ভান্ডারদহ গ্রামের আলমসাধুচালক ষষ্ঠী হালদার (৪৫)। দুর্ঘটনায় নিহতদের প্রত্যেকেই পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। প্রিয়জন হারানোর পাশাপাশি পরিবারগুলো আর্থিক অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে। দুর্ঘটনায় আহত তিতুদহের আলমগীর হোসেন (২৮), মহাম্মদজমার আকাশ (১৮) ও সরোজগঞ্জের বাবলু রহমানের (৪৫) অবস্থা উন্নতির দিকে বলে জানিয়েছেন সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) শামীম কবির।

    সোহাগের স্বপ্ন তছনছ: চাষের বা ভিটা জমি না থাকায় গ্রামের কামাল উদ্দিনের জমিতে মাটির ছোট একটি ঘর তুলে মা আনুরা বেগমকে নিয়ে বাস করে আসছিলেন সোহাগ। মায়ের পছন্দেই প্রতিবেশী আঁখিতারা খাতুনকে এক বছর আগে বিয়েও করেন। আঁখিতারা এখন আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা। মা আনুরা বেগম কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ‘আমার ছেলে বারবার বুলত, আমি কুনু দিন বাপের আদর-সোহাগ পাইনি। আমার সন্তানের খুব আদর করব, কুনু দিন কষ্ট দেব না। বাস ডাইবার আমার ছেলের সেই স্বপ্ন শেষ করে দিল।’ আহাজারি করে আনুরা বেগম বলে যাচ্ছিলেন, ‘আমার এট্টাই ছেলে। সে জন (শ্রমিকের কাজ করে) বয়ে আমাগের খাওয়ায়। আমার বিটা চলে গেল। কেউই থাকল ন্যা। অ্যাকন কিডা খাওয়াবে আমাগেরে? ক্যারাম করে চলব? তুমরা আমার বিটারে আইনে দ্যাও।’

    রাজুর রক্তাক্ত দেহ দেখে আতঙ্কিত সন্তান: বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী বাবা, বৃদ্ধা মা, স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদ ঘটা বোন এবং স্ত্রী, দুই সন্তানসহ সাত সদস্যের পরিবারে একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি ছিলেন রাজু আহম্মেদ। দিনে দিনমজুর এবং রাতে মুদিদোকানে ব্যবসা করে সংসারের হাল ধরে রেখেছিলেন তিনি। একটি দুর্ঘটনায় সব তছনছ হয়ে গেল পরিবারটির। বাবার রক্তাক্ত মরদেহ দেখে ভয়ে বাড়ি ছেড়েছে ছেলে স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র আসিফ হোসেন (১০)। সে চলে গেছে নানার বাড়িতে। চার বছর বয়সী মেয়ে লাবণী কেঁদেই চলেছে বাবার জন্য।

    শরিফের লুঙ্গি নিয়ে মায়ের আহাজারি: ছেলে শরিফ হোসেনের অকালমৃত্যুতে ভেঙে পড়েছেন মা নবিছন নেছা। শরিফের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, ছেলের লুঙ্গি বুকে জড়িয়ে অঝোরে কাঁদছেন ৭০ বছর বয়সী এই নারী। শরিফের বড় ছেলে রাহুল অষ্টম ও ছোট ছেলে সাব্বির চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ে। একমাত্র মেয়ে শেফার বয়স এক বছর। দরিদ্র পরিবারটির একমাত্র অবলম্বন স্বামীকে হারিয়ে দিশেহারা স্ত্রী কাজলী খাতুন।

    শরিফুল ছিলেন নাসরিনের একমাত্র আশ্রয়: স্বামী শরিফুল ইসলাম ওরফে কালুর মৃত্যুর পর দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া ছেলে ইব্রাহিম ও ১১ মাস বয়সী মেয়ে জামিলাকে নিয়ে চরম অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছেন স্ত্রী নাসরিন। জীবনের কঠিন সময়েও তাঁকে সান্ত¡না দেওয়ার মতো কেউ নেই। স্বামীর বাড়িতে ভিটে ছাড়া কিছুই নেই। বাবা দ্বিতীয় সংসার করায় সেখানেও যাওয়ার সুযোগ নেই নাসরিনের।

    মেয়েকে ঘিরে মিলনের অনেক স্বপ্ন ছিল: ভেটেরিনারি চিকিৎসক মিলন হোসেনের এক মেয়ে, দুই ছেলে। মেয়ে মিলি পারভীন এ বছর এসএসসি পাস করেছে। বড় ছেলে সুলতান সপ্তম ও ছোট ছেলে স্বাধীন দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র। মৃত্যুর আগের দিনও সহপাঠী বন্ধু জাকির বিশ্বাসের কাছে মিলন হোসেন বলেছিলেন, ‘আমার স্বপ্ন, মেয়ে চিকিৎসক হবে।’ স্বামী হারিয়ে স্ত্রী পলি খাতুন সন্তানদের নিয়ে চরম অনিশ্চয়তার মুখোমুখি হয়ে পড়েছেন।

    ছেলেকে ষষ্ঠী ডাকতেন ‘রাজদ্বীপ’ বলে: ষষ্ঠী হালদারের তিন মেয়ে, এক ছেলে। ছেলেটিকে বাড়ির সবাই শুভ বলে ডাকলেও বাবা আদর করে রাজদ্বীপ বলে ডাকতেন। পাঁচ বছর বয়সী শিশুটি কাঁদতে কাঁদতে বলছিল, ‘কে আমাকে রাজদ্বীপ বলে ডাকবে?’ ষষ্ঠীর বড় ও মেজ মেয়ে বিবাহিত। ছোট মেয়ে স্থানীয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী। স্ত্রী লিলি রানী স্বামীর কথা বলে আহাজারি করছিলেন। সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত তিতুদহের চারজনকেই পাশাপাশি চারটি কবরে সমাহিত করা হয়েছে। স্থানীয় সমাজসেবক শাহীন আলী জানান, এক দিনে চারজনের মৃত্যুর ঘটনা গ্রামটিতে প্রথম। সরোজগঞ্জের সড়ক দুর্ঘটনায় সদর থানার উপপরিদর্শক মেফাউল হাসান বাদী হয়ে মামলা করেছেন। এতে গাড়ির চালক আশাদুল আলম, চালকের সহকারী লিটনসহ অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করা হয়েছে।

    সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান জানান, চালক আশাদুলকে গ্রেপ্তারের পর আজ রোববার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। সহকারী লিটন হোসেনের সন্ধানে অভিযান চলছে।

    ভারতের পানিতে তলিয়ে গেছে শার্শায় সাড়ে ৩শ হেক্টর জমির ফসল

    যশোরের শার্শা উপজেলার দক্ষিণাঞ্চল ভারতীয় ইছামতি নদীর উজানের পানিতে তলিয়ে গেছে। আউশ আমনসহ বিভিন্ন সবজি পানির নিচে ডুবে রয়েছে। অনেকের বাড়িতে পানি উঠতে শুরু করেছে। স্থানীয়রা জানান, গত ক’দিন ধরে ভারতের ইছামতি নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। পানি রুদ্রপুর খাল দিয়ে প্রবেশ করে শার্শার দক্ষিণাঞ্চলের মাঠ ঘাট ভাসিয়ে দিয়েছে। এতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। দক্ষিণের কায়বা, গোগা, বাগআঁচড়া, উলশী ও পুটখালী ইউনিয়নের বিল অঞ্চল তলিয়ে ভেসে গেছে ডাঙা জমির ফসল। রুদ্রপুর গ্রামের খালধার পাড়ার সিরাজুল ইসলাম জানান, প্রতিদিন আধা ফুট করে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে বিলে। ইছামতির পানি খাল দিয়ে ঢুকে পড়ছে শার্শায়। খালমুখে স্লুইজ গেট থাকলেও তা ক্রটিপূর্ণ। পানি আটকানোর ক্ষমতা নেই। কায়বা ইউনিয়নের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আনিছুর রহমান জানান, কায়বার ঠেঙামারী, আওয়ালী, গোমর, পান্তাপাড়া, ডেয়ো ও মহিষা বিলের আশপাশের সাড়ে ৩শ হেক্টর জমি এ বছর পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে আউশ আমনসহ সবজি ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন মহলকে জানানো হয়েছে।

    ট্রাকের পেছনে ধাক্কা দিয়ে প্রাণ গেল দুই মোটরসাইকেল আরোহীর

    খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কে দুর্ঘটনায় আবু নাসের হাসপাতালের হিসাবরক্ষক রোকনুজ্জামান লিটু ও ইনুস্ট্রুমেন্ট কেয়ার টেকার সাকিব হোসেন নিহত হয়েছেন। রোববার (৯ আগস্ট) রাত সাড়ে ৮টার দিকে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের পাটকেলঘাটা থানাধীন মির্জাপুর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই ওই দু’জন মারা যান। পাটকেলঘাটা থানার এসআই সুব্রত জানান, মির্জাপুর বাজারের কিছু সামনে শ্মশান ঘাট এলাকায় একটি ট্রাক দাঁড়িয়েছিল। এ সময় সাতক্ষীরাগামী একটি মোটরসাইকেল দ্রুতগতিতে ছুটে এসে ট্রাকটির সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল আরোহী দু’জন মাথায় আঘাত পেয়ে মারা যান। পরে পাটকেলঘাটা থানা পুলিশ মরদেহ ও মোটরসাইকেল উদ্ধার করে খর্নিয়া হাইওয়ে থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। তিনি আরও বলেন, মোটরসাইকেলের চালক ছিলেন সাকিব হোসেন। তার মাথায় মারাত্মক জখম হয়েছে। তাদের পকেট সার্চ করে কোনো ধরনের কাগজপত্র বা ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়া যায়নি।

    কয়রায় জায়গা জমি দখলকে কেন্দ্র করে মারামারিতে আহত-৬

    কয়রায় জায়গা জমি জোরপুর্বক দখলকে কেন্দ্র করে মারপিঠ করে ৬ জনকে আহত করেছে প্রতিপক্ষরা। আহতদেরকে গুরত্বর অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে কয়রা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হলেও তাদের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য খুমেক হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে। জানা গেছে উপজেলার ভাগবা গ্রামের মৃত আলেক সরদারের পুত্র অলিউর সরদার গংদের জমি জোর করে দখল নেওয়ার চেষ্টা করে একই গ্রামের হেদায়েত সরদার গংরা। এতে তারা বাধা দিলে হেদায়েত গংদের লোকজন তাদেরকে মারপিঠ করে আহত করে। এ ঘটনায় অলিয়ার রহমান বাদী হয়ে কয়রা উপজেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১০ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। বিজ্ঞ আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে কয়রা থানা অফিসার ইনচার্জকে এফএআর করার নির্দেশ প্রদান করেন। মামলা করার পর অলিউর গংরা বাড়ী ফিরে গেলে গত রবিবার তাদের উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে মারপিঠ করে আহত করে। এতে রুহুল আমিন, মফিজুল, জেসমিন, তারামনি, অলিয়ার সহ আরও নেকেই জখম হয়। স্থানীয়রা আহত অবস্থায় তাদেরকে ঘটনা স্থল থেকে উদ্ধার করে কয়রা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। তাদের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য সেখান থেকে খুমেক হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে। বর্তমানে তারা সেখানেই চিকিসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে বলে জানা গেছে।

    নড়াইলে এসএম সুলতানের ৯৬তম জন্মবার্ষিকী পালিত

    বিশ্ববরেণ্য চিত্রশিল্পী এসএম সুলতানের ৯৬তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে তাঁর জন্মস্থান নড়াইলে। জেলা প্রশাসন ও এসএম সুলতান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে সোমবার (১০ আগস্ট) সুলতান স্মৃতি সংগ্রহশালায় আয়োজন করা হয় নানা কর্মসূচির। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকাল ১০টায় কোরআন খানি, দোয়া মাহফিল, শিল্পীর মাজার জিয়ারত ও মাজারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে শিল্পীকে স্মরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সুলতান ফাউন্ডেশনের সভাপতি ও জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা। অন্যদের মধ্যে ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (জেনারেল) মো. ইয়ারুল ইসলাম, সুলতান আর্ট কলেজের অধ্যক্ষ অনাদী বৈরাগী, এসএম সুলতান শিশু চারু ও কারুকলা ফাউন্ডেশনের সভাপতি শেখ হানিফ, নড়াইল প্রেসকাবের সাধারণ সম্পাদক শামীমুল ইসলাম টুলু প্রমুখ।

    পুরো ক্ষতিপূরণ না দিয়েই গাছ কাটার অভিযোগ

    ক্ষতিপূরণের পুরো টাকা না দিয়েই নির্মাণাধীন মোংলা-বাগেরহাট ১৩২ কেভি ডাবল সার্কিট সঞ্চালন বিদ্যুৎ লাইনের নিচের গাছ কাটার অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে ভুক্তভোগী দরিদ্র সংখ্যালঘু পরিবারগুলো প্রতিকার পেতে রবিবার (৯ আগস্ট) দুপুরে বাগেরহাট জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছে। ভুক্তভোগীরা জানান, বাগেরহাট সদর উপজেলার কাড়াপাড়া ইউনিয়নের কাঠি গ্রামের কয়েকটি দরিদ্র সংখ্যালঘু পরিবারের বসতবাড়ির ওপর দিয়ে মোংলা-বাগেরহাট ১৩২ কেভি ডাবল সার্কিট সঞ্চালন বিদ্যুৎ লাইন নির্মাণ করা হচ্ছে। বছর খানেক আগে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের একটি চিঠি দিয়ে মোংলা-বাগেরহাট ১৩২ কেভি ডাবল সার্কিট সঞ্চালন লাইন নির্মাণ হবে বলে তাদের জানানো হয়। সেখানে স্পষ্ট লেখা ছিল সামাজিক বনবিভাগ ও কৃষিবিভাগের মাধ্যমে স্থানীয় জমির মালিকদের ফসলের ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করে ক্ষতিপূরণের টাকা দেওয়া হবে।

    কিন্তু ভুক্তভোগীরা বিদ্যুৎ লাইন নির্মাণ করতে আসা ব্যক্তিদের কাছ থেকে নানাভাবে হয়রানির শিকার হয়েছেন। সামান্য টাকা দিয়ে একের পর এক হুমকি, পুলিশ ও প্রশাসনের ভয় দেখিয়ে লাইন নির্মাণ করেছে। ১৫ দিন আগে তাদের ফলন্ত গাছগুলো কেটে ফেলেছে। তারা ভেবেছিল গাছ কাটার পর সম্পূর্ণ টাকা দেওয়া হবে। কিন্তু পরে কোনও টাকা দেওয়া হয়নি। এমনকি বারবার সরকারি ক্ষতিপূরণের নির্ধারিত তালিকা দেখতে চাইলেও আজকাল করে তারা তা দেখায়নি। ভুক্তভোগী অম্বরিশ মন্ডল বলেন, ‘আমি নিঃসন্তান। স্ত্রী অসুস্থ। সারাজীবন পরের বাড়ি নারকেল-সুপারি পেড়ে জীবন নির্বাহ করি। এখন আগের মতো শরীরে শক্তি নেই। আমার বেঁচে থাকার শেষ সম্বলও হারিয়েছে । এর তেমন কোন ক্ষতিপূরণ পাইনি।’ জগদিশ মন্ডল, গৌতম কুমার মন্ডল, সুপ্রিয়া বৈরাগি জানান, সন্তানতুল্য ফলন্ত নারকেল সুপারি গাছগুলো কেটে ফেলেছে। এটাই ছিল আমাদের আয়ের একমাত্র উৎস। গাছগুলো কেটে ফেলায় আমরা দুঃখে ভাতও খেতে পারিনি। তারপর সরকারি কাজ মনে করে সহ্য করেছি। কিন্তু আমাদের সামান্য টাকা দিয়ে বিদায় দেওয়া হয়েছে। বারবার সরকারি রেট অনুযায়ী আমাদের টাকা দিতে অনুরোধ করলেও তা কেউ শোনেনি। উল্টো আমাদের নানাভাবে হয়রানি করার হুমকি দিয়েছে। এ বিষয়ে বাগেরহাট কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক রঘুনাথ কর কোনও কিছুই জানেন না বলে জানান। যোগাযোগ করা হলে বাগেরহাট সামাজিক বনবিভাগের বিভাগীয় বনকর্মকর্তা (ডিএফও) আবুল কালাম জানান, সরকারি নির্দেশনা পেলে মূল্য নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। কিন্তু ওই অঞ্চলে বিদ্যুতের সঞ্চালন লাইন নির্মাণের বিষয়ে তাদের কিছুই জানানো হয়নি। এবিষয়ে জানতে চাইলে আমিনবাজার-মাওয়া-মোংলা ৪০০ কেভি সঞ্চালন লাইন প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী প্রবীর চন্দ্র দত্ত বলেন, নিয়মানুযায়ী ক্ষতিগ্রস্তদের টাকা দেওয়া হয়।

    কয়রায় জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা

    স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের ৪৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে কয়রা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে প্রস্তুতিমুলক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার বেলা ১১ টায় উপজেলা পরিষদের মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনিমেষ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে প্রস্তুতি সভায় আলোচনায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এস এম শফিকুল ইসলাম, উপজেলা সহকারী কমিশনার ( ভূমি) মোঃ নূর-ই আলম সিদ্দিকি,ভাইস চেয়ারম্যান এ্যাডঃ কমলেশ কুমার সানা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাছিমা আলম, উপজেলা কৃষি অফিসার এস এম মিজান মাহমুদ, ইউপি চেয়রম্যান বিজয় কুমার সরদার, আলহাজ্ব সরদার নুরুল ইসলাম কোম্পানী, আলহাজ্ব আমীর আলী গাইন, আঃ সাত্তার পাড়,এইচ এম হুমায়ুন কবির,কবি শামছুর রহমান,অধ্যক্ষ অদ্রিশ আদিত্য মন্ডল,এস এম আমিনুল ইসলাম,প্রেসকাব সভাপতি এসএম হারুন অর রশীদ, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি শরিফুল ইসলাম টিংকু প্রমুখ। সভায় বিভিন্ন দপ্তরের সরকারি কর্মকর্তা,জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, সাংবাদিক, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ সহ গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। করোনা সংক্রমণ এড়াতে সভায় ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুবার্ষিকী পালনে স্বাস্থ্য বিধি মেনে সীমিত আকারে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারি ও বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনিমিত, সকাল সাড়ে ৭টায় উপজেলা পরিষদ চত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ, বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কীর্তি শীর্ষক আলোচনা সভা ও বাদ যোহর বিভিন্ন মসজিদ-মন্দিরে মোনাজাত ও বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হবে বলে সিধান্ত গৃহিত হয়।

    সরকারি খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা কলেজের নতুন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ-এর দায়িত্ব গ্রহণ

    দেবহাটা উপজেলার সখীপুরে অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী সরকারি খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা কলেজে নতুন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে সিনিয়ারিটির ভিত্তিতে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পবিত্র মোহন দাশের নিকট থেকে দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন কলেজের ইংরেজি বিভাগীয় প্রধান ও সহকারী অধ্যাপক মোল্লা সাবীর হোসেন। তিনি ১১ আগস্ট ২০২০ তারিখ থেকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করবেন।

    কলেজের শিক্ষক মিলনায়তনে ১০ আগস্ট সোমবার বেলা ১১ টা হতে একাডেমিক বোর্ড মিটিং পরবর্তী ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও গণিত বিভাগীয় প্রধান, প্রতিষ্ঠাকালীন ১১ জনের শেষ শিক্ষক বাবু পবিত্র মোহন দাশ’র চাকরির বয়স ৬০ বছর পূর্ণ হওয়ায় শেষ কর্মদিবসে নতুন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের নিকট দায়িত্বভার হস্তান্তর অনুষ্ঠানে পবিত্র মোহন দাশ এর সভাপতিত্বে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে স্মৃতিচারণমূলক বক্তব্য রাখেন সরকারি খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা কলেজের প্রতিষ্ঠাকালীন শিক্ষক ও সদ্য সাবেক অধ্যক্ষ মো. রিয়াজুল ইসলাম, প্রতিষ্ঠালীন অপর শিক্ষক ও সদ্য সাবেক উপাধ্যক্ষ আলহাজ্জ মো. আব্দুল মজিদ। কলেজের শিক্ষক পরিষদ সম্পাদক ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ের সহকারী অধ্যাপক মো. মইনুদ্দিন খান এর সঞ্চালনায় সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে আলোকপাত করেন ব্যবস্থাপনা বিষয়ের বিভাগীয় প্রধান শেখ মিজানুর রহমান, ব্যবস্থাপনা বিষয়ের সিনিয়র প্রভাষক মো. মনিরুজ্জামান (মহসিন), জীববিজ্ঞান বিষয়ের শিক্ষক মো. আবু তালেব প্রমূখ। একাডেমিক কাউন্সিলের বিভিন্ন বিভাগীয় প্রধান ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য শিক্ষক-কর্মচারীবৃন্দের উপস্থিতিতে বিদায়ী ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পবিত্র মোহন দাশ তার চাকরি জীবনের নানা স্মৃতি উল্লেখপূর্বক কলেজ সরকারিকরণ হওয়ার পরও ২০২০ সালে কলেজ থেকে তার পূর্বে বেসরকারিভাবে অবসরে যাওয়া অপর ৩ জন শিক্ষকদের ন্যায় মনকষ্টের কথা ব্যক্ত করেন। পাশাপাশি বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও পীর কেবলার নামে প্রতিষ্ঠিত ঐতিহ্যবাহী কলেজটির লেখাপড়ার মান সহ সর্ববিষয়ে সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এগিয়ে যেতে পারে সেজন্য সকলের প্রতি আহবান জানান বক্তাগণ।

    উল্লেখ্য, সরকারি খানবাহাদুর আহ্ছানউল্লা কলেজের দীর্ঘদিনের অধ্যক্ষ মো. রিয়াজুল ইসলাম এবছরের ৩১ মে অবসরে গেলে ১ জুন থেকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন পবিত্র মোহন দাশ। তার চাকরির শেষ কর্মদিবস ১০ আগস্ট হওয়ায় ১১ আগস্ট মঙ্গলবার থেকে নতুন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব নিচ্ছেন মোল্লা সাবীর হোসেন।

    সভার শেষ পর্যায়ে কলেজের পক্ষ থেকে নতুন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের মাধ্যমে বিদায়ী ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পবিত্র মোহন দাশকে কিছু উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়।

    ঝিনাইদহে সাংবাদিক রাজিব হাসানের শ্বশুরের মৃত্যুতে বিভিন্ন মহলের শোক

    ঝিনাইদহে একাত্তর টিভির জেলা প্রতিনিধি, গ্রামের কাগজের স্টাফ রিপোর্টার সাংবাদিক রাজিব হাসানের শ্বশুরের ছবেদ আলী বিশ্বাস হৃদযন্ত্র ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন। (ইন্না লিল্লাহি.. রাজিউন)। সোমবার ভোরে নিজ বাসা জেলা শহরের আরাপপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৮ বছর। তিনি স্ত্রী- এক ছেলে ও দুই কন্যাসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে চলে গেছেন না ফেরার দেশে। মরহম ছবেদ আলী বিশ্বাস এক সময়ে আদালতের আইনজীবি সহকারী ও পরে ব্যবসা করতেন। তার একমাত্র ছেলে সেলিম রেজা ইসলামী ব্যাংকের কর্মকর্তা, বড় মেয়ে সুইট সুলতানা শিক্ষানবীশ আইনজীবি ও ছোট মেয়ে কোহেলী আক্তার কুইন ঝিনাইদহ কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষক। সোমবার বাদ যোহর জানাযা শেষে আরাপপুর শেখ পাড়ায় গোরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে।

    রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক এবং বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তারা মরহমের আত্নার মাগফেরাত কামনা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমাবেদনা জানান।

    কেশবপুরে পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় ২ ব্যক্তি নিহত

    যশোরের কেশবপুরে সোমবার পৃথক দু’টি সড়ক দূর্ঘটনায় এক নারীসহ দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, সকালে যশোর-চুকনগর সড়কের মধ্যকুল ট্রাক টার্ণিলারের পাশে চুকনগর মুখি যাত্রীবাহী একটি বাসের সামনের চাকা পাংচার হয়ে চাকার রিং খুলে পাশে চলন্ত ভ্যান যাত্রী মনজিলা খাতুনের (২৫) গায়ে লেগে ঘটনাস্থলে নিহত হন। এ সময় তার শিশু মেয়ে সিনথিয়া (৩) ও মধ্যকুল গ্রামের গোলাম মোস্তফা (৫০) আহত হন। এলাকাবাসী দ্রুত আহতদের উদ্ধার করে কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

    উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার আলমগীর হোসেন জানান, চুকনগর হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহত মহিলার লাশ উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। আহত শিশুটি ডান পা ও মাথায় আঘাত পেয়েছে।

    অপর দিকে এলাকাবাসী জনায়, বিকেলে একই সড়কের বুজতলা-তেইশমাইল নামক এলাকায় সাইকেল চালিয়ে আসার সময় আলতাপোল গ্রামের বৃদ্ধ আব্দুর রহমান (৭০) আলম সাধুর ধাক্কায় নিচে পড়ে ঘটনাস্থলে নিহত হয়েছেন। তার বাবার নাম মৃত ইদু সরদার।

    কেশবপুর প্রেসকাবের উদ্যোগে উপজেলা চেয়ারম্যানের সুস্থতা কামনায় দোয়া

    কেশবপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী রফিকুল ইসলামের সুস্থতা কামনা করে সোমবার বিকালে কেশবপুর প্রেসকাবের উদ্যোগে দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কেশবপুর প্রেসকাবের হলরুমে দোয়া অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আশরাফ-উজ-জামান খান। বক্তব্য রাখেন, কেশবপুর প্রেসকাবের সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসাইন ও সাগরদাঁড়ি ইউপি চেয়ারম্যান কাজী মুস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত। দোয়া পরিচালনা করেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ইমাম আবুল কালাম আজাদ। দোয়া অনুষ্ঠানে শরিক হন কেশবপুর প্রেসকাবের যুগ্ম সম্পাদক এম আর মঈন, কোষাধ্যক্ষ সামছুর রহমান, দফতর সম্পাদক মশিয়ার রহমান, ক্রীড়া সম্পাদক শেখ শাহীনুল ইসলাম, গ্রন্থাগার সম্পাদক শাহীনুল ইসলাম, নির্বাহী সদস্য আব্দুর রহমান, নুরুল ইসলাম খান, আব্দুর রাজ্জাক, রুহুল আমীন খান, সদস্য, সিদ্দিকুর রহমান, উৎপল দে, রাবেয়া ইকবাল, আব্দুল মোমিন, আব্দুস সালাম, এ কে আজাদ ইকতিয়ার, মতিয়ার রহমান, রুহুল আমিন বিশ্বাস, আব্দুল্লাহ আল ফুয়াদ, আয়ুব খান, এহসানুল হোসেন তাইফুর, আব্দুল করিম, সোহেল পারভেজ, রমেশ চন্দ্র দত্ত, কামরুজ্জামান রাজু, শহিদুল ইসলাম, মেহেদী হাসান জাহিদ, সুশান্ত কুমার মল্লিক, অলিয়ার রহমান ও আব্দুল্লাহ আল মামুন । উল্ল্যেখ্য, উপজেলা চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা কাজী রফিকুল ইসলাম সম্প্রতি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তিনি তার নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তিনি উপজেলাবাসীর কাছে তার সুস্থতার জন্য দোয়া প্রার্থনা করেছেন।

    বাগেরহাটে করোনায় একজনের মৃত্যু, উপজেলা আ.লীগের সাধারন সম্পাদকসহ আক্রান্ত ৩

    বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের পশ্চিম জয়পুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সন্দীপ বসু চৌধুরী গোপাল (৩৫) করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। এদিকে বাগেরহাটে জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক যাত্রাপুর ইউপি চেয়ারম্যান এম এ মতিন ও তার স্ত্রীসহ ৩ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এই নিয়ে বাগেরহাট জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৭২১ জনে। আক্রান্তদের মধ্যে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ্য হয়েছেন ৫৫০ জন। অন্যরা চিকিৎসাধীন রয়েছেন। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ এতথ্য নিশ্চিত করেছে।

    বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির জানান, মোরেলগঞ্জ উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের পশ্চিম জয়পুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সন্দীপ বসু চৌধুরী গোপালের শরীরে করোনা উপসর্গ দেখা দিলে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ তার নমুনা সংগ্রহ করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পাঠায়। দু’সপ্তাহ আগে আইইডিসিআর থেকে সেই রিপোর্টে পজিটিভ আসে। বাড়িতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে এক সপ্তাহ আগে তাকে ঢাকার একটি করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হলে রবিবার রাতে মরদেহ বাড়িতে এনে করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনে দাহ করা হয়েছে। করোনা আক্রান্তদের মধ্যে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনা আক্রান্তদের মধ্যে মৃতদেও মধ্যে ফকিরহাট উপজেলায় ৯ জন, বাগেরহাট সদরে ২ জন, মোরেলগঞ্জে ২ জন, মোংলা উপজেলায় ২ জন, শরণখোলায় ১ জন ও কচুয়ায় ১ জন। সুস্থ্য হয়েছেন ৫৫০ জন। অন্যরা চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

    এদিকে বাগেরহাটে জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক যাত্রাপুর ইউপি চেয়ারম্যান এম এ মতিন ও তার স্ত্রীসহ ৩ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। অন্য একজন আক্রান্ত হয়েছে মোল্লাহাট উপজেলায়। এ নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৭২১ জনে।

    নতুন করোনা আক্রান্তদের বাড়ীতে ও প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে রেখে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এসব করোনা আক্রান্তদের পরিবারের সদস্য ও সংর্স্পশে আসা লোকজনকে চিহ্নিত করে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে।

    বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগার ছাত্র ফেডারেশন’র চেয়ারম্যানের ওপর হামলাকারীদের গ্রেফতার করতে হবে

    নড়াইলে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও পাঠাগার ছাত্র ফেডারেশন’র চেয়ারম্যান ডা. এস এম বাদশা মিয়া ও তার পরিবারের সদস্যদের ওপর হামলাকারীদের গ্রেফতার ও বিচার করতে হবে। গতকাল সোমবার দুপুর ১২টায় খুলনা প্রেস কাবের হুমায়ুন কবীর বালু মিলনায়তনে পরিবারের পক্ষ থেকে এক সংবাদ সম্মেলনে এই দাবী জানানো হয়। লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তার ভাই এস এম হেলাল আহম্মেদ।

    সম্মেলনে তিনি বলেন, গত ১আগস্ট নড়াইল জেলার নড়াগাতি থানার কলাবাড়িয়া গ্রামের শিবপুর মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় সময় সকাল ৮টায় হাসমত , কাশেম , গোলাম ও চানমিয়াসহ ২০-২৫জন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংগঠনের চেয়ারম্যান ও পরিবারের সদস্যদের ওপর হামলা করে। সে নামাজ আদায় না করে দৌড়ে প্রাণে বাঁচে। তাকে ধাওয়া করে গুলি ছোড়ে তা তার গায়ে লাগেনি। এমনকি দুর্বৃত্বরা ওই মসজিদের ঈমামকেও মারপিট করে। হাসমত আমার চাচা আওয়ামী লীগের প্রবীন নেতা আবুল খায়েরের পায়ের রগ কেটে দেয়। তার নামে একাধিক হত্যাসহ অনেক কয়েকটি মামলা রয়েছে। এই ঘটনায় মামলা হলে পুলিশ হাসমতকে একটি ঘের লুটপাটের মামলা দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করলে জামিনে বেরিয়ে আসে।

    সম্মেলনে তিনি বলেন, হাসমতকে রাজু তালুকদার নামের এক আওয়মী লীগের নেতা আশ্রায় প্রশ্রায় দিচ্ছেন। হাসমত ও তার সহযোগিদের ভয়ে আতংকে দিন কাটাচ্ছেন এই পরিবারটি। তিনি হাসমত ও সহযোগিদের গ্রেফতার ও বিচার দাবী করেন। অন্যথায় প্রশাসনের বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। এ সময় তার পরিবারের সদস্য ও সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

    শরণখোলায় পুষ্টি উন্নয়নে সমন্বিত প্রকল্পে কিশোর-কিশোরী ফোরাম গঠিত

    শরণখোলায় পুষ্টি উন্নয়নে সমন্বিত প্রকল্পের অংশীদারিত্ব নিশ্চিত করতে ইউনিয়ন পর্যায়ে কিশোর কিশোরী ফোরাম গঠন করা হচ্ছে। সোমবার ১০ আগষ্ট সকালে আর.কে.ডি.এস বালিকা বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক কর্মশালায় রায়েন্দা ইউনিয়ন ফোরাম গঠিত হয়। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সেলিম হাওলাদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী-যুবলীগের আহবায়ক ও রায়েন্দা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিলন। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহিলা সংরক্ষিত আসনে ইউপি সদস্য লাইলী কাঞ্চন, শিক্ষিকা রাশিদা বেগম, রুপান্তর কর্মকর্তা সুমাইয়া পারভীন ও ইলিয়াস হোসেন। এতে ইসরাত জাহান ইমাকে সভাপতি ও সারমিন আক্তার কে সম্পাদক করে ইউনিয়ন ফোরাম গঠিত হয়। প্রকল্প সমন্বয়কারী সুমাইয়া পারভীন জানান, কিশোর কিশোরীদের পুষ্টি নিশ্চিত করতে পর্যায়ক্রমে সকল ইউনিয়ন ও উপজেলায় কিশোর কিশোরী ফোরাম গঠন করা হবে। যারা উপজেলার কিশোর কিশোরীদের পুষ্টি সম্পর্কিত বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি ও অধিকার আদায় কাজ করবে।

    ফকিরহাটে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা

    বাগেরহাটের ফকিরহাটে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস অনুষ্ঠান যথাযোগ্য মর্যাদায় ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা প্রশাসন উদ্যোগে সোমবার বেলা ১১টায় উপজেলা অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়েছে প্রস্তুতি সভায় ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে সভাপতির বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: তানভীর রহমান। এসময় উপস্থিত ছিলেন ফকিরহাট সদর ইউপি চেয়ারম্যান শিরিনা আক্তার কিসলু, বাহিরদিয়া-মানসা ইউপি চেয়ারম্যান মো: রেজাউল করিম ফকির, পিলজংগ ইউপি চেয়ারম্যান খান শামিম জামান পলাশ, মুক্তিযোদ্ধা ডেপুটি কমান্ডার সৈয়দ আলতাফ হোসেন টিপু, প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা: পুষ্পেন কুমার শিকদার, সিনিয়র মৎস্য অফিসার অভিজিৎ শীল, ডা: শাহরিয়ার শামীম, ওসি (তদন্ত) মো: নাজমুল হাসান, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার দেবাশীষ কুমার বিশ্বাস, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আশিষ কুমার নন্দী, সমাজ সেবা অফিসার মো: সবুর আলী, পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম শেখ আহসানুল করিম, প্রোগ্রাম অফিসার শাহিনা আক্তার, প্রধান শিক্ষক অসিম কুমার মজুমদার, সহকারি অধ্যাপক মাসুদ হোসেন মুক্ত প্রমূখ।

    ফকিরহাট উপজেলা চেয়ারম্যানকে দেখতে আসেন বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ

    করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ফকিরহাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি স্বপন দাশ বর্তমানে চিকিৎসকের পরামশে বেতাগায় বাড়ীতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। তাকে সোমবার সকাল সাড়ে ৯টায় দেখতে বাড়িতে আসেন বাগেরহাট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা কামরুজ্জামান টুকু সহ বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ। এসময় স্বপন কুমার দাশের শারীরিক খোজ খবর নেন তিনি। এছাড়াও এদিন তাকে দেখতে আসেন উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দ। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মেডিকেল অফিসার (মা ও শিশু) কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ শাহরিয়ার শামীম। বেতাগা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ইউনুস আলী শেখ, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান স্বপন দাশের সহধর্মীনী লিপি দাশ সহ উপজেলা বিভিন্ন ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের স্বস্থ্যকর্মীবৃন্দ। অপরদিকে, রবিবার দুপুরে দেখতে বাড়িতে আসেন বাগেরহাট জেলা প্রশাসক মো: মামুনুর রশীদ। এসময় স্বপন কুমার দাশের শারীরিক খোজ খবর নেন তিনি এবং পুষ্টিকর খাদ্য সামগ্রী প্রদান করেন। এসময় বেতাগা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ইউনুস আলী শেখ সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

    খুলনা জেলা সুনাম কমিটির সভাপতির সুস্থ্যতা কামনা

    গত ০১ আগস্ট ২০২০ খুলনা জেলার সভাপতি ও বিশিস্ট সাংবাদিক সুনীল দাস ও তার স্ত্রী সহ করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তার কর্মময় বর্নীল জীবনে মানুষের পক্ষে কথা বলেন এবং সকল সময়ে মানুষের পাশে থাকেন। তার কলম লেখনীতে সৎ ও সত্যের পক্ষে দূর্দান্ত ভূমিকা রাখেন।

    কাজ করতে গিয়ে মহামারী করোনা ভাইরাস তাকেও রেহাই দেয়নি। রেহাই দেয়নি তার পরিবারকেও। তার ও তার পরিবারের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছে খুলনা জেলা সুরক্ষা, নাগরিক অধিকার ও মর্যাদা (সুনাম) কমিটির সকল নেত্রীবৃন্দ।

    উক্ত বিবৃতিদাতারা হলেন, খুলনা জেলা সুরক্ষা, নাগরিক অধিকার ও মর্যাদা (সুনাম) কমিটির সহসভাপতি প্রভাষক পঞ্চানন ম-ল ও মাহফুজুর রহমান মুকুল, সাধারণ সম্পাদক এসএম সোহেল ইসহাক, সহ-সাধারণ সম্পাদক এ্যাড: নুরুন নাহার পলি ও এনজিও কর্মকর্তা পলাশ দাশ, কোষাধ্যক্ষ তরিকুল ইসলাম বাপী, মানবাধিকার সম্পাদক এ্যাড: পপি ব্যানার্জি, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক রিংটন ম-ল, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক জগন্ময় কর্মকার, কার্যকারী সদস্য যথাক্রমে, মাহমুদ হাসান রনি, মাহবুব আলম বাদশা, ফরহাদ হোসেন মিটন, নূর উদ্দীন মো: ইদ্রীস, মোছা: শিরিনা পানভিন, মাকসুদা খাতুন, অনুপম সরকার, সাগর সেন, বাহালুল আলম, রুবেন সরকার, বেনজির আহমেদ মুকুল, জেসমিন আক্তার, মশিবুর রহমান, জি এম রাসেল ইসলাম, মিঠুন দাস।

    প্রধানমন্ত্রীসহ সাবেক দু’সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে মুঠোফোনে কটাক্ষ: যুবলীগ নেতা বহিস্কার

    পাইকগাছায় যুবলীগ নেতা এমএম আজিজুল হাকিম কর্তৃক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, সাবেক দুই এমপিকে কটাক্ষ করায় উপজেলা যুবলীগের দলীয় সভায় বহিস্কর করে জেলা যুবলীগের কাছে অনুমোদনের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে।

    পাইকগাছা উপজেলা যুবলীগ সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির সদস্য এম,এম আজিজুল হাকিমের সাথে মোবাইলে চাঁঁদখালী ইউনিয়নের আ’লীগ সভাপতি আলহজ্ব মুনছুর গাজীর কথোপকথন হয়। মোবাইল কথোপকথনের এক পর্যায়ে আজিজুল হাকিম বলে, “সাধারণ সম্পাদক টিপু, সাবেক দু’সংসদ সদস্য এ্যাড. সোহরাব আলী সানা বা নুরুল হকের (সদ্য প্রয়াত) দল করি না।” এমনকি আওয়ামীলীগের কেন্দ্রেীয় সভাপতির নাম উল্লেখ করে বলে, ”আমি শেখ হাসিনার দলও করিনা আমি করি বাবু ভাইয়ের দল। বাবু ভাই আছে আমি আিছ বাবু ভাই নেই আমি নেই”। যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক ভাইরাল হয়ে পড়ে। দল, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও সাবেক এমপিদের বিরুদ্ধে কটাক্ষ করে দলীয় ভাবমুর্তি ভঙ্গের অভিযোগে দলীয় কার্যালয়ে উপজেলা যুবলীগের বিশেষ জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার দুপুরে আহবায়ক আনিছুর রহমান মুক্ত’র সভাপতিতে¦ জগদীশ চন্দ্র রায়ের পরিচালনায় সভায় যুবলীগ নেতা এমএম আজিজুল হাকিমকে সর্বসম্মতিক্রমে বহিস্কার করা হয়। চুড়ান্ত ভাবে সিদ্ধান্ত নেযার জন্য যুবলীগ জেলা কমিটির কাছে অনুমোদনের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে। সভায় বক্তব্য রাখেন, শেখ শহিদ হোসেন বাবুল, শেখ মাসুদুর রহমান, শেখ আব্দুস সাত্তার, গাজী আব্দুর রাজ্জাক রাজু, অহেদুজ্জামান মোড়ল, মোঃ জাকির হোসেন, গৌতম কুমার রায়, প্রণব কান্তি মন্ডল, এস,এম আসিফ ইকবাল রনি, মোঃ আকরামুল ইসলাম, প্রসুন কুমার সানা, শেখ আতাউর রহমান, আনিছুর রহমান গাজী ও তরিকুল ইসলাম। এব্যাপারে আজিজুল হাকিম ভুল স্বীকার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

    লোহাগড়া আওয়ামী লীগ নেতাকে ফাঁসাতে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিতদের নিয়ে মানববন্ধন

    নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার লুটিয়া বাজারের ব্যবসায়ী সোহাগ রানার ওপর হামলার ঘটনায় এক আওয়ামী লীগ নেতাকে ফাঁসাতে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিতদের নিয়ে মানববন্ধন করার অভিযোগ উঠেছে। একটি মহল বিষয়টি নিয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে বলে জানা গেছে।

    সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এলাকাবাসীর আয়োজনে সোমবার দুপুরের দিকে লোহাগড়া-মহাজন সড়কের লুটিয়া বাজারে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। মানববন্ধনে কয়েকজন ব্যবসায়ীসহ বিএনপি-জামায়াতের কর্মীরা অংশ নেয়। মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন ডাঃ সার্জন আহম্মেদ, সম্পাদক আজমল হোসেন, মিতু প্রমুখ।

    মানববন্ধনে দিঘলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সরদার ওহিদুর রহমানকে জড়িয়ে নানা অভিযোগ করা হয়েছে। সরদার ওহিদুর রহমান অভিযোগ করেন, কথিত হামলার দিন আমি ঘটনাস্থলে না থাকলেও একটি মহল বিএনপি-জামায়াত সমর্থিতদের নিয়ে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। তারা মানববন্ধন করেছে। আমি গত নির্বাচনে দিঘলিয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করেছিলাম। আসন্ন নির্বাচনেও আমি প্রার্থী। তাই আমার প্রতিদ্বন্দি প্রার্থী মোঃ তরিকুল উসমানের ইন্দনে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। আহত সোহাগ খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

    উল্লেখ্য, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে গত শনিবার বেলা ১২ টার দিকে একদল সন্ত্রাসী সোহাগ মোল্যা(২৮) কে লুটিয়া বাজারে কুপিয়ে আহত করে পালিয়ে যায়।

    লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান, ব্যবসায়ীর উপর হামলার ঘটনায় এখনো কেউ অভিযোগপত্র জমা দেয়নি। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে দুজনকে আটক করা হয়েছে।

    বাগেরহাটে ভুয়া জমি মালিকের খপ্পরে ভিক্ষুকসহ কয়েকটি পরিবার

    বাগেরহাটের ভুয়া জমি মালিকের খপ্পরে পড়ে জায়গা কিনে চরম বিপদে পড়েছে চিতলমারি উপজেলার সন্তোষপুর ইউনিয়নের কালিগঞ্জ এলাকার কয়েকটি পরিবার। এলাকার একটি চক্র ভিক্ষুকসহ বিভিন্ন পরিবারের কাজ থেকে জায়গা দেওয়ার কথা বলে টাকা নিলেও দলিল বুঝে না দেওয়ায় কালিগঞ্জ এলাকার ৭/৮ টি পরিবার রয়েছে চরম বিপদের মধ্যে। এক জমি ৩/৪ বার বিক্রি করার অভিযোগ ও তাদের বিরুদ্ধে। ক্রয় কৃত সম্পত্তি কেউ বুঝে নিতে চাইলে কাউকে মামলা দিয়ে হয়রানি, ভয়-ভীতি ও হুমকিসহ বিভিন্ন নির্যাতনের অভিযোগ।

    কালিগঞ্জ বাজারের পার্শবর্তি শুকলাল বিশ্বাসসের স্ত্রী মালা বিশ্বাস অভিযোগ করে বলেন,প্রায় ৩০ বছর পূর্বে স্থানীয় শেখ বাড়ির আব্দুর রবের কাজ থেকে ৭ শতক জমি ১লক্ষ ১২ হাজার টাকায় ক্রয় করি। এই ত্রিশ বছরেও আমাদের জায়গাটির দলিল পত্র বুঝে দেয়নি। জমি বুঝে দিতে বললে বিভিন্ন হুমকি-ধামকি প্রদান করাসহ একাধিক ভাবে আমাদের মারপিট করে। তিনি অভিযোগ করে আরো বলেন, আমার ছেলে মারা গেলেও আমার ক্রয় কৃত জায়গায় মাটি দিতেও তারা বাধা প্রদান করে।

    কালিগঞ্জের ডেকোরেটরের দোকানদার মোঃ লাভলু মল্লিক বলেন ,১৯৯৪ সালে স্থানীয় আলী আকবর ,আব্দুর রবের কাজ থেকে জমি ক্রয় করা বাবদ এ পর্যন্ত ১ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা প্রদান করেও আমাকে জমির কাগজ পত্র বুঝে দেয়নি। জমির কথা বললে আমাকে বিভিন্ন হুমকি খেতে হয়।

    কালিগঞ্জ বাজারের তৃনাথ শীলের ছেলে অনুপম শীল বলেন,প্রায় ত্রিশ বছর পূর্বে অর্ধ শতক জায়গা বাবদ ৩০ হাজার টাকা দেয় আলী আকবর ও রহমান। তারা আজ না কাল বলে এত দিনেও আমাদের জায়টার দলিল বুঝে দিচ্ছেনা ।

    স্থানীয় নূর মোহাম্মদের ছেলে প্রতিবন্ধী ভিক্ষক আলমগীর অভিযোগ করে বলেন, আমি ভিক্ষা করে খাই। আব্দুর রব শেখ আমাকে ৬ শতক জায়গা দেওয়ার কথা বললে অনেক কষ্ট করে ভিক্ষা করে টাকা জোগাড় করলে আমার কাজ থেকে আব্দুর রব শেখ টাকা নেয়। এখন জমি বুঝে তো দিচ্ছেই না যদি জমির দলিলের কথা বলি আমাকে বিভিন্ন মামলার ভয় ভাতি দেখায় আব্দুর রব শেখের লোকজন।

    এদিকে আলী আকবর বাওয়ালির ৩ শতক জমি বাবদ টাকা দিলেও জমি রেজিস্ট্রি করে দেয় নাই। জমি বুঝে চাইলে আমাকে বিভিন্ন হুমকিসহ মারপিট করে। আমাকে এ পর্যন্ত ৭/৮ টি মিথ্যা মামলা করেছে আমার বিরুদ্ধে।

    এছাড়া ও জমি দেওয়ার কথা বলে টাকা নিয়ে দলিল বুঝে না দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে স্থানীয় একাধিক রুস্তুম সরদার সহ আরো অনেকের। তারা সবাই তাদের ক্রয়কৃত জায়গায় সম্পত্তির সঠিক দলিল পত্র বুঝে পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

    স্থানীয় সন্তোষপুর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য কৃষ্ণপদ রায় বলেন,কালিগঞ্জের শেখ বাড়ির আব্দুররব,আলী আকবর, রহমান সোবহান,তুহিন,সুমন,আবু জাফর,সোহান এলাকার বিভিন্ন মানুষের কাজ থেকে টাকা নিয়ে জমি বুঝে দেয়না। সাধারন মানুষের সাথে প্রতারনা করে এক জমি ৩/৪ বার বিক্রি করে বলে অভিযোগ করেন। তিনি সকল ভুক্তভোগীকে দ্রুত দলিল প্রদানের আহবান জানান।

    এ বিষয়ে শেখ পরিবারের সোহান শেখের সাথে (০১৭১৩-৪২৪৫৩৫) নম্বরে যোগাযোগ করা হলেও তাকে ফোনে পাওয়া সম্ভব হয়নি।

    গাওলায় স্বামী ও সতিন কর্তৃক দু”সস্তানের জননীকে নির্যাতন

    বাগেরহাটের মোল্লাহাট উপজেলার গাওলা ইউনিয়নের জয়খা গ্রামের মৌসুমী বেগম (২৫) নামের দু সন্তানের এক জননীকে স্বামী ও সতিন কর্তৃক অমানষিক নির্যাতন চালিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অসহায় মৌসুমী বেগম দু সন্তানকে সাথে নিয়ে বিচারের দাবীতে বিভিন্ন স্থানে ধর্ণা দিচ্ছেন। অভিযোগে জানা যায়, উক্ত গ্রামের সোহাগ ফকির এর সাথে মৌসুমী বেগমের বিবাহ হয়। বিবাহের পর তার কোল জুড়ে আলী ফকির (৮) ও লিতুন ফকির (৫) নামের দু পুত্র সন্তান জন্ম গ্রহন করে। কিছু দিন তাদের দাম্পাত্ত জীবন ভাল চললেও তাকে না জানিয়ে স্বামী সোহাগ অনাত্রে পুনঃরায় একটি বিবাহ করেন। বিবাহ করার পর স্বামী ও সতিন কর্তৃক তাকে খেতে পারতে না দিয়ে দফায় দফায় অমানষিক নির্যাতন চালায়। ঘটনার দিন গত শুক্রবার তাকে আবারও বেধড়ক মারপিট করলে স্থানীয়রা তাকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় ফকিরহাট উপজেলা সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করেন। অসহায় মৌসুমী বেগম দু সন্তানকে সাথে নিয়ে বিচারের দাবীতে বিভিন্ন স্থানে ধর্ণা দিচ্ছেন।

    ফকিরহাটে মুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রিয় মাযাদায় গাড অব অনার

    বাগেরহাটের ফকিরহাটের বেতাগা ইউনিয়নের চাঁদের ডোন গ্রামের লক্ষীকান্ত দাশ (৭২) নামের একজন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা পরলোক গমন করেছেন। রবিবার গভীর রাতে নিজ বাড়ীতে বার্ধক্যজনিত কারনে তিনি মূত্যুবরণ করেন। মূত্যুকালে তিনি ১পুত্র ১কন্যা ১স্ত্রী সহ অসংখ্য আতœীয় সজন রেখে যান। সকালে তার নিজ বাড়িতে রাষ্ট্রিয় মর্যাদায় গাড অপ অনার প্রদান শেষে পারিবারিক শ^শানে দাফন সম্পন্ন করা হয়। এর আগে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পক্ষ হতে তাকে ফুল দিয়ে শেষ শুদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাগেরহাটের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেড মোঃ আজিজুল কবির, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার সৈয়দ আলতাপ হোসেন টিপু, অমর দাশ, আবুবক্কার আবু, সুপ্রকাশ পাল, শুভদিয়া ফাড়ি পুলিশের ইনচাজ এসআই মহিদুল ইসলাম ও বেতাগা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ইউনুস আলী শেখ সহ বিভিন্ন ব্যাক্তিবর্গ। উল্লেখ্য উপজেলায় মাত্র দুইজন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধার মধ্যে তিনিই একজন।

    তেরখাদায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবরের শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা

    গতকাল সকাল ১০ টায় তেরখাদা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে নির্বাহী কর্মকর্তা শিমুল কুমার রায় এর সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধুর জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্টিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ শহিদুল ইসলাম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান দ্বয় শারাফাৎ হোসেন মুক্তি ও নাজমা আইয়ুব, ৬ ইউপি চেয়ারম্যানগণ, বিভিন্ন বিদ্যালয় ও মাদ্রাসার প্রধানগণ, মুক্তিযোদ্ধা চৌধুরী আবুল খায়ের, উপজেলা প্রেসকাব সভাপতি নুর মোহাম্মদ সিফাত, সাধারন সম্পাদক বাছিতুল হাবিব প্রিন্স, দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মোল্যা শাহিদুল ইসলাম, সুষম উন্নয়ন বাস্তবায়ন কমিটির দপ্তর সম্পাদক সাহাবুদ্দিন বদির, ইসলামী ফাউন্ডেশনের মডেল কেয়ারটেকার মাওলানা আব্বাস আলী সহ উপজেলা প্রশাসনের সকল দপ্তরের প্রধান গণ।

    তেরখাদা উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্দ্যেগে জাতীয় শোক দিবস ১৫ আগষ্টের প্রস্তুতিমূলক সভা

    তেরখাদা আওয়ামী ও তার অঙ্গসংগঠনের উদ্দ্যেগে গতকাল সকাল ১১ টায় ইখড়ী কাটেংগা সরকারী মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের হলরুমে সংগঠনের সভাপতি এফ, এম অহিদুজ্জামানের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক কে, এম আলমগীরের পরিচালনায় জাতীয় শোক দিবস ১৫ আগষ্টের প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বিভিন্ন কর্মসূচী বিষয় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সরফুদ্দিন বিশ্বাস বাচ্চু, বিশেষ অতিথি বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক উপ-প্রচার সম্পাদক তেরখাদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ শহিদুল ইসলাম, ভাইস চেয়ারম্যান শারাফাত হোসেন মুক্তি, অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগ নেতা বদরুল আলম বাদশা, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক, বাদশা মল্লিক, আব্দুস শুকুর মোল্যা, ইউপি চেয়ারম্যান উকিল উদ্দিন লস্কার, কৃষ্ণ মেমন রায়, শেখ মোঃ মহাসিন, খান সেলিম আহমেদ আওয়ামীলীগ নেতা বাছিতুল হাবিব প্রিন্স, শেখ তবিবুর রহমান, চৌধুরী আবুল খায়ের, মুক্তিযোদ্ধা বোরহান উদ্দিন আহমেদ, আক্তার কাজী, আক্তারুজ্জামান জুন, আবু খায়ের, হিরাঙ্গীর সহ উপজেলার ৬ ইউনিয়নের ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতা কর্মী বৃন্দ।

    দেবহাটা থানার ১শত গজের মধ্যে সাংবাদিকের বাড়িসহ কয়েকটি চুরি সংগঠিত, পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা

    দেবহাটা থানার ১শত গজের মধ্যে সাংবাদিকের বাড়িসহ কয়েকটি চুরি সংগঠিত হয়েছে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত কোন চোর আটক হয়নি বা পুলিশের পক্ষ থেকে কোন ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়নি। উপজেলা সদরে পরপর এধরনের চুরির ঘটনা ঘটনায় জনমনে সংশয় যেমন বাড়ছে তেমনি ঐ চোর চক্রটি নির্বিগ্নে চুরি সংগঠিত করছে। যার কারনে এতে করে একদিকে আইনশৃঙ্খলার যেমন অবনতি হচ্ছে ঠিক তেমনি এলাকায় অবৈধ কাজের মাত্রা বৃদ্ধি পাচ্ছে। জানা যায়, গত ৫ আগষ্ট ২০২০ তারিখে রাত সাড়ে ৮ টার দিকে দেবহাটা প্রেসকাবের সাধারন সম্পাদক ও সাতক্ষীরা জর্জকোর্টের শিক্ষানবীশ আইনজীবি সৈয়দ রেজাউল করিম বাপ্পার দেবহাটা উপজেলা সদরস্থ দেবহাটা থানা থেকে মাত্র ১ থেকে ১৫০ গত দুরত্বে অবস্থিত বাড়িতে একটি সংঘবদ্ধ চোরদল বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে দুঃসাহসিক চুরি করে। এসময় চোরেরা সাংবাদিকের বাড়ি থেকে প্রায় ২ লক্ষাধিক টাকার সোনার গহনা ও নগদ টাকা চুরি করে নিয়ে যায়। এ বিষয়ে সাংবাদিক আর.কে.বাপ্পা বাদী হয়ে ৬ আগষ্ট দেবহাটা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। কিন্তু অভিযোগ দেয়ার ৫ দিন অবিবাহিত হলেও আজ পর্যন্ত কোন চোরকে থানা পুলিশ আটক করেনি। এমনকি বিষয়টি নিয়ে দেবহাটা থানার ওসি বিপ্লব কুমার সাহা ও থানার সেকেন্ড অফিসার নয়ন চৌধুরীকে বারবার মৌখিকভাবে বললেও তারা কোন গুরুত্ব দেননি। সাংবাদিক আর.কে.বাপ্পা জানান, এ বিষয়ে তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাজিয়া আফরীন ও ওসি বিপ্লব কুমার সাহাকে জানিয়েছেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ২/১ দিনের মধ্যে উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা ডেকে আলোচনা করবেন বলে জানিয়েছেন। সাংবাদিকের বাড়িতে চুরির ঘটনার পরে গত ৮ তারিখ রাত ১ টা ৩০ মিনিটের দিকে দেবহাটা থানার ৩ শত দূরত্বে ব্যবসায়ী ঝন্টু দের বাড়িতে সংঘবদ্ধ চোরেরা হানা দেয়। কিন্তু এসময় ঝন্টু দে দেখতে পেয়ে চিৎকার দিলে চোরদল পালিয়ে যায়। ঝন্টু দে জানান, চোরেরা মুখে গামছা ও হাফ প্যান্ট পরা অবস্থায় ছিল। একই রাতে উপজেলা সদরের আবুল কালাম পলাশের হার্ডওয়ারের দোকান ও তন্তু ইসলামের ভ্যারাইটি স্টোর থেকে চোরেরা চুরি করে। ঐ একই রাতে উপজেলা সদরের পঙ্কজ দত্তের মুদিখানার দোকানটি অগ্নিকান্ডে ভষ্মিভূত হয়। আগুন লাগার কারন অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে সখিপুরস্থ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পায়ে অগ্নিদগ্ধ হয়ে একজন ভর্তি হয়েছে। পরে খোজখবর নিয়ে জানা যায়, অগ্নিদগ্ধ হওয়া ব্যক্তির নাম শাওন। সে দেবহাটা উপজেলার চাঁদপুর গ্রামের সালাহউদ্দীনের পুত্র। উক্ত শাওনকে কয়েকদিন আগে দেবহাটা থানার এসআই আবু হানিফ একটি চুরির মামলায় গ্রেফতার করে। উক্ত শাওনের সাথে উপজেলা সদরের আব্দুর রহিমের ছেলে আব্দুস সামাদ ও কোড়া গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে আবু রায়হানকে সবসময় ঘুরতে দেখা যায়। আবু রায়হান দেবহাটা থানার চুরি, ছিনতাই ও মাদক মামলার আসামী এবং আব্দুস সামাদের বিরুদ্ধেও একাধিক চুরির অভিযোগ আছে বলে এলাকাবাসী জানায়। প্রশ্ন থেকে যায়, পঙ্কজ দত্তের দোকানে রাত ৩ টার দিকে আগুন লাগে আর ঐ রাতে শাওন ওখানে কি করছিল। আর কেনইবা তার পা দুটো পুড়ে গেল। এ বিষয়টি নিয়েও দেবহাটা থানার সেকেন্ড অফিসার নয়ন চৌধুরীকে পঙ্কজ দত্তসহ স্থানীয়রা বারবার বললেও তিনি কোন গুরুত্ব দিচ্ছেন না। পুলিশ যদি এই গ্যাংটিকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে তাহলে এই সকল চুরির রহস্য উদঘাটন হবে বলে স্থানীয়রা মনে করেন। পঙ্কজ দত্ত তার দোকান পুড়ে যাওয়ার ঘটনায় গত ৯ আগষ্ট দেবহাটা থানায় একটি জিডি করেছেন। যার নং- ২৬৯। পুলিশ এই বিষয়ে নিষ্ক্রিয় কেন এই প্রশ্ন সকলের। বিষয়টি সচেতন মহল সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

     

    ঝিনাইদহে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১

    ঝিনাইদহের মহেশপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ওসমান নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। আজ দুপুরে উপজেলার হাসাদহ এলাকার রাস্তার এ ঘটনা ঘটে। সে চুয়াডাঙ্গা জেলার হাসাদহ মাঠ পাড়া গ্রামের গোলাম মন্ডলের ছেলে।

    পুলিশ জানায়, সোমবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর সীমান্তবর্তী মহেশপুরের হাসাদহ এলাকায় রাস্তার পাশে বসে ভাত খাচ্ছিল ওসমান। সেসময় পিছন দিক থেকে আসা একটি বাস পিছন দিক থেকে তাকে চাপা দেয়। স্থানীয়রা উদ্ধার করে মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স্রে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

    ঝিনাইদহ সিদ্দিকীয়া কামিল মাদ্রাসায় মৌখিক পরীক্ষায় অর্থ আদায়ের অভিযোগ

    ঝিনাইদহ সিদ্দিকীয়া কামিল মাদ্রাসায় মৌখিক পরীক্ষায় অর্থ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষক ও কর্মচারীদের বিরুদ্ধে। কামিল ১ম ও ২য় বর্ষের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে নেওয়া হয়েছে জনপ্রতি ৪’শ টাকা। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, সোমবার সকাল থেকে কামিল ১ম ও ২য় বর্ষের মৌখিক পরীক্ষা শুরু হয়। পরীক্ষা শুরু থেকেই মাদ্রাসার একটি কক্ষে অফিসের কর্মচারী জাফর ও শিক্ষক মোমিন প্রত্যেকের কাছ থেকে ৪’শ টাকা নিয়ে টোকেন দিচ্ছেন। যা পরীক্ষার গেটে থাকা নিরাপত্তা প্রহরীতে দেখিয়ে ভেতরে ঢুকতে হচ্ছে। টাকা না দিলে তাদের টোকেন দেওয়া হচ্ছে না বলেন অভিযোগ করেন শিক্ষার্থীরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী তার সাদা টোকেন দেখিয়ে বলেন, আমি বাড়ি থেকে ২’শ টাকা নিয়ে এসেছিলাম পরীক্ষা দিতে। এখানে এসে শুনছি পরীক্ষা দিতে হলে ৪’শ টাকা দিতে হবে। আমি টাকা দিই নি বলে আমার সাদা টোকেন দেওয়া হয়েছে। ২য় বর্ষের এক শিক্ষার্থী বলেন, প্রত্যেক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে ৪’শ টাকা নেওয়া হচ্ছে। টাকা নেওয়ার ব্যাপারে আমরা জিজ্ঞাসা করলে তারা বলেন এটা নাস্তা খরচ নেওয়া হচ্ছে। আরএক ছাত্র অভিযোগ করেন, কামিল ১ম ও ২য় বর্ষে শিক্ষার্থী রয়েছে ২’শ ২৩ জন। তাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে নাস্তা বাবদ ৪’শ টাকা নেওয়া হচ্ছে। তাহলে প্রায় ৯০ হাজার টাকা নাস্তা বাবদ আমাদের কাছ থেকে নেওয়া হচ্ছে। সংবাদকর্মীদের উপস্থিতি টের পেয়ে টাকা ও পরীক্ষা নেওয়া বন্ধ করে দেয় শিক্ষকরা। পরীক্ষা কক্ষের বাইরে শিক্ষার্থীরা এ অভিযোগ করলেও টাকা নেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করলেন প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ রুহুল কুদ্দস। তিনি বলেন আমরা কোন টাকা নিচ্ছি না।

    শৈলকুপায় ইয়াবাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক

    ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার শেখপাড়া বাজার থেকে ইয়াবাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-৬। রোববার রাতে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হলো-কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার ছেউরিয়া মন্ডলপাড়ার মৃত রমজান মন্ডলের ছেলে ইমরান হোসেন (৩০) ও লাহিনীপাড়ার আবু বক্কারের ছেলে রুবেল হোসেন (২৬)। র‌্যাব-৬, সিপিসি-২ ঝিনাইদহ ক্যাম্পের স্কোয়াড কমান্ডার এএসপি এইচ এম শফিকুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জানতে পারে শেখপাড়া বাজার এলাকায় মাদক ক্রয়-বিক্রয় হচ্ছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালিয়ে হাতে নাতে ৩’শ ১০ পিচ ইয়াবাসহ ওই ২ জনকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় শৈলকুপায় থানায় মামলা হয়েছে।

    শৈলকুপায় পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

    ঝিনাইদহের শৈলকুপায় আহাদ হোসেন নামের এক বছর বয়সী এক শিশুর পানিতে ডুবে মৃত্যু হয়েছে। সে উপজেলার নওপাড়া গ্রামের কৃষক রুবেল মন্ডলের ছেলে। পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, শিশুটি সোমবার দুপুরে খেলতে খেলতে ঘরের পাশে পানির গর্তে পড়ে যায়। পরে খোঁজাখুঁজি করে গর্তের পানিতে ভেসে থাকতে দেখে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। পরে শিশুটিকে শৈলকুপা হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষনা করেন।

    মহেশপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় এক জনের মৃত্যু

    ঝিনাইদহের মহেশপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ওসমান (৫৫) নামর এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (১০ আগস্ট) বেলা ১২ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। সে চুয়াডাঙ্গা জেলার হাসাদহ মাঠ পাড়া গ্রামের গোলাম মন্ডলের ছেলে।

    মহেশপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম জানান, আজ দুপুরে চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর সীমান্তবর্তী মহেশপুরের হাসাদহ এলাকায় রাস্তার পাশে বসে ভাত খাচ্ছিল ওসমান। সেসময় পিছন দিক থেকে আসা একটি বাস পিচন দিক থেকে তাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। তিনি জানান নিহতের লাশ মহেশপুর থানা পুলিশের হেফাজতে রয়েছে।

    মোল্লাহাটে বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ উদযাপন এবং উপজেলা পুষ্টি সমন্বয় কমিটি গঠন

    ইউরোপীয় ইউনিয়ন এর অর্থায়নে এবং কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইড-এর সহযোগিতায় উন্নয়ন সংস্থা জেজেএস এর উদ্যোগে ”পুষ্টি উন্নয়নে অংশগ্রহণমূলক সমন্বিত প্রকল্প (ক্রেইন)” এর আওতায় মোল্লাহাট উপজেলা প্রশাসনের পরিচালনায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ১০ আগষ্ট, ২০২০ তারিখ বেলা ১০টায় ”বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ’২০২০” বিষয়ক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন অনিন্দ মন্ডল- সহকারী কমিশনার (ভূমি), মোল্লাহাট উপজেলা এবং প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান- সেলিম রেজা। এছাড়াও সরকারী বিভিন্ন দপ্তর প্রধান, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানবৃন্দ, সাংবাদিক, শিক্ষকসহ পুষ্টি সমন্বয় কমিটির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন। সভার সভাপতি বলেন, সরকারি বিভিন্ন কার্যক্রমের ক্ষেত্রে পুষ্টি এবং স্বাস্থ্য-কে বিশেষ গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করা হচ্ছে। তিনি তাঁর বক্তব্যে পুষ্টি সমন্বয় কমিটির সদস্যদের উপজেলায় বসবাসরত সুবিধা বঞ্চিতদের পুষ্টি চাহিদা নিরুপন ও সরকারী বিভিন্ন দপ্তরের প্রদত্ত সেবায় তাদের অভিগম্যতা তথা সেবা নিশ্চিতের আহবান জানান। এর পাশাপাশি সভার প্রধান অতিথি উন্নয়ন সংস্থা জেজেএস এর উদ্যোগে কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইড-এর সহযোগিতায় ক্রেইন প্রকল্প এর আওতায় মোল্লাহাট উপজেলার ১৪০০ উপকারভোগীকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করার কার্যক্রম গ্রহনের ভূয়ষী প্রশংসা করেন। উন্নয়ন সংস্থা জেজেএস এর পক্ষে সভায় উপস্থিত প্রকল্পের কো-অর্ডিনেটর- মোঃ মামুন অর রশীদ উপজেলায় চলমান ‘পুষ্টি উন্নয়নে অংশগ্রহণমূলক সমন্বিত প্রকল্প’(ঈজঅঅওঘ) এর বিভিন্ন কর্মকান্ড বিষয়ে সংক্ষিপ্ত ধারনা প্রদান করেন। প্রকল্পের পুষ্টিবিদ মৌতিথি আইচ বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ বিষয়ক পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনা করেন। সভায় উপজেলা পুষ্টি সমন্বয় কমিটি গঠন করা হয় এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পক্ষে সহকারী কমিশনার (ভূমি) এই কমিটির কর্মপরিধি ও কার্যক্রম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন।

    গিলাতলা – ইষ্টার্ণগেট এলাকায় মাদকের সয়লাব : বাড়ছে অপরাধ মুলক কর্মকান্ড

    নগরীর খানজাহান আলী থানাধীন গিলাতলা ও ইষ্টার্ণগেট এলাকায় মাদক ব্যসায়ীরা আবারো মাথাচড়া দিয়ে উঠেছে, করোনা কালীন সময়ে থানা পুলিশ বিভিন্ন কর্মকান্ডে ব্যস্ত থাকার কারণে মাদক ব্যবসায়ীরা সে সুযোগটিকে কাজে লাগিয়ে এলাকায় মাদকের রমরমা ব্যবসা চালু করে । গত জুলাই মাসে থানার সাবেক ওসি মোঃ শফিকুল ইসলাম থানা এলাকায় মাদক বিরোধী চিরুনি অভিযান শুরু করেন এবং জুলাই ১৫ তারিখ পর্যন্ত তিনি বেশ কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেন, এছাড়া প্রতিটি মোড়ে মোড়ে সাধারন মানুষকে সাথে নিয়ে শুরু করেন মাদক বিরোধী সচেতনামুলক সভা, জুলাই মাসের মাঝামাঝি পর্যন্তবেশ কয়েকটি মাদক মামলা হয় খানজাহান আলী থানায় । কিন্তু থানা এলাকার মশিয়ালী হত্যাকান্ডের ঘটনায় থানা পুলিশ ব্যস্ত থাকায় সুযোগটি কাজে লাগিয়ে আবারো এলাকায় ফিরতে শুরু করেছে তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ীরা । অনুসন্ধানে জানা যায় ইষ্টার্ণগেট এলাকায় একটি বাগানে নিয়মিত মাদক কেনাবেচা হতো সেটা দির্ঘদিন প্রশাসনের কড়া নজরদারি থাকার কারণে বন্ধ থাকলেও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বদলী হওয়ার পর পুনরায় আবারো শুরু হয়েছে মাদক কেনা বেচা । বিশেষ করে সন্ধার পরে ওই বাগানে বিভন্ন স্থান থেকে মটর সাইকেল , প্রাইভেট কারে এলাকার বাইরে থেকে বিভিন্ন বয়সের মানুষ আসে। আর বাগানের চারপাশে ফেন্সিডিলের খালি বোতল ও ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকতে দেখা যায়। গিলাতলা গাজীপাড়া এলাকার তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী (মাদক সম্্রাট)এলাকার বাইরে থেকেই নিয়ন্ত্রন করছে মাদক ব্যবসা, মাঝেমধ্যে পুলিশের চোখ ফাকি দিয়ে এলাকায় এসে আবার গোপনে এলাকা ত্যাগ করে । গিলাতলা যুব সংঘের সাধারণ সম্পাদক মাসুম বিল্লাহ বলেন থানা পুলিশ যদি আন্তরিক হয় তাহলে মাদক ব্যবসায়ীরা কোনভাবেই মাথাচড়া দিয়ে উঠতে পারেনা, আর মাদকের কারণে দিন দিন থানা এলাকায় অপরাধ মুলক কর্মকান্ড বৃদ্ধি পাচ্ছে । খানজাহান আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ কবির হোসেন বলেন সকল কাজের ভিতর দিয়ে মাদক বিরোধী অভিযান অব্যাহত রয়েছে, রবিবার বেলা ৩ টার দিকে গিলাতলা কেডিএ আবাসিক এলাকায় অভিযান চালিয়ে ২ বোতল ফেন্সিডিল সহ ১ জনকে আটক করা হয়েছে । থানা এলাকায় মাদক নির্মুলে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন ।

    দাকোপে পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ এক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

    খুলনার দাকোপে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৪০৩ পিস ইয়াবাসহ মেরিন হাসান (৩১) নামে এক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছেন। রবিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নবাগত থানা অফিসার ইনচার্জ শেখ সেকেন্দার আলীর নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম উপজেলা সদর চালনা পৌরসভার আচাঁভূয়া সার্বজনীন দূর্গা মন্দির সংলগ্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করেন। সে পাইকগাছা উপজেলার গড়ইখালী এলাকার মৃত মিজানুর রহমানের ছেলে। এঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন যার নম্বর ৫/২০। থানা অফিসার ইনচার্জ শেখ সেকেন্দার আলী বলেন মেরিনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের পর গতকাল সোমবার কোর্ট হাজতে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া মাদারীপুরের সিআর ২৬৪/১৬ মামলার গ্রেফতারী পরোয়ানা আসামী উপজেলার ঢাংমারী এলাকার অমূল্য মন্ডলের ছেলে নিতাই মন্ডলকে আটক করে বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

    খুবির এফএমআরটি ডিসিপ্লিনের প্রফেসর ড. খন্দকার আনিছুল হকের মাতার ইন্তেকালে উপাচার্যের শোক

    খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারিজ এন্ড মেরিন রিসোর্স টেকনোলজি ডিসিপ্লিনের প্রফেসর ড. খন্দকার আনিছুল হকের মাতা আশরাফুন্নেছা গতকাল দিবাগত রাত ১২-১৫ টায় ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহে …রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। তিনি বেশকিছুদিন যাবত বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি ৩ পুত্র ও ৩ কন্যাসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। আজ বেলা ১১ টায় মরহুমার নামাযে জানাজা শেষে তাঁকে টাঙ্গাইলের ভূঁয়াপুরের ভারই চরপাড়া গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান ফিশারিজ এন্ড মেরিন রিসোর্স টেকনোলজি ডিসিপ্লিনের প্রফেসর ড. খন্দকার আনিছুল হকের মাতার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক শোকবার্তায় তিনি মরহুমার রুহের মাগফেরাত কামনা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারবর্গের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। অনুরূপভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস, জীববিজ্ঞান স্কুলের ডিন প্রফেসর ড. মোঃ রায়হান আলী, সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিন প্রধান প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আব্দুর রউফসহ শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারিবৃন্দ শোক প্রকাশ করেছেন।

    এছাড়া পৃথক বিবৃতিতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন এবং সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. আশীষ কুমার দাস।

    রূপসা উপজেলায় মাসিক আইন শৃংখলা ও শোক দিবস পালন উপলক্ষে আলোচনা সভা

    জুম কনফারেন্স’র মাধ্যমে উপজেলার মাসিক আইনশৃঙ্খলা,সমন্বয় সভা ও ১৫ আগষ্ট পালনের প্রস্তুতি মূলক সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন খুলনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুস সালাম মূর্শেদী। ১০ আগষ্ট বেলা ১১ টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরিন আকতার সভায় সভাপতিত্ব করেন। এসময় বক্তৃতা করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন বাদশা,থানা অফিসার ইনর্চাজ মোল্লা জাকির হোসেন, কৃষি কর্মকর্তা মোঃ ফরিদুজ্জামান, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ যোবায়ের, ফারহানা আফরোজ মনা, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আইরিন পারভীন, অধ্যক্ষ ফ ম আঃ সালাম, মৎস্য কর্মকর্তা বাপ্পি কুমার দাস, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ আরিফ হোসেন, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মোল্লা আবু বকর, সমবায় কর্মকর্তা প্রশান্ত ব্যানার্জী, বন কর্মকর্তা মোঃ মুজিবর রহমান, সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা, ইউপি চেয়ারম্যান আশরাফুজ্জামান বাবুল, আলহাজ্ব এসহাক সরদার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও টিএসবি ইউনিয়নের এমপি’র প্রতিনিনিধি সৈয়দ মোরশেদুল আলম বাবু, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শ্রীফলতলা ইউনিয়নের এমপি’র প্রতিনিধি এস এম হাবিব, প্যানেল চেয়ারম্যান সেকেন্দার মোল্লা, আসাবুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা কাজী ইয়াহিয়া, আঃ মালেক, রিনা পারভীন, প্রেসকাবের সাধারণ সম্পাদক আঃ রাজ্জাক শেখসহ বিভিন্ন দপ্তরের প্রধানগন,শিক্ষক ও সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।

    জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ৩৩নং ওয়ার্ড আ’লীগের প্রস্তুতি সভা

    জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস এবং ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবস পালন উপলক্ষে ৩৩নং ওয়ার্ড(যোগিপোল ইউনিয়ন) আওয়ামী লীগের প্রস্তুতি সভা রবিবার সন্ধ্যায় ফুলবাড়ীগেট্ আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউসুফ আলী খলিফার সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মোড়ল হাবিবুর রহমানের পরিচালনায় প্রস্তুতি সভায় বক্তৃতা করেন, আওয়ামীলীগ নেতা নুর মোহাম্মাদ, আব্দুল খালেক মাষ্টার, অম্বিকা রানি মন্ডল, মতিয়ার রহমান, খায়রুল ইসলাম, গোলাম রসুল, শেখ সিদ্দিকুর রহমান, মো. আনোয়ার হোসেন, মাষ্টার আকবার আলী, মাসুম খন্দকার, কামরুল ইসলাম, মো. শফিউদ্দিন শফি, কাজী মো. সেলিম রেজা, কাজী আব্দুল কাদের, নজরুল ইসলাম, রেজাউল ইসলাম, জহুরুল ইসলাম, কাঞ্চন, মো. হানিফ প্রমুখ। সভায় করোনাভাইরাসের প্রাদূর্ভাবে মহানগর আওয়ামীলীগের নির্দেশনা মোতাবেক সীমিত পরিষরে জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি নিয়ে আলোচনা করা হয়। সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ১৪ আগস্ট রাত ১২ টা ১মিনিটে ফুলবাড়ীগেট বঙ্গবন্ধু চত্তরে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল, ১৫ আগস্ট ওয়ার্ডের প্রতিটি ইউনিটির মসজিদে যোহরবাদ দোয়া ও মন্দিরে প্রার্থনা সভা। দিনব্যাপি ইউনিট দলীয় কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ প্রচার ও কোরআন তেলওয়াত, আছরবাদ ফুলবাড়ীগ্টে দলীয় কার্যালয়ে শোক দিবসের আলোচনা সভা এবং ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবসের আলোচনা সভা করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

    শিরোমনি খানজাহান আলী থানা সড়কে আবারো অবৈধ পার্কিং প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা

    নগরীর খানজাহান আলী থানা সড়কটি আবারো অবৈধ পাকিং এর দখলে চলে গেছে । এতে করে প্রতিদিন ঘটছে দুর্ঘটনা, বিগত ৪ মাস আগে থানা পুলিশির সহোযোগীতায় অবৈধ গাড়ী পার্কিং অপসারণ করা হয়। এর পর সড়কের উপর থেকে ট্রাক, সহ বিভিন্ন কোম্পানির গাড়ি সরিয়ে নিলেও পুনরায় সড়কের দু পাশে অবৈধ পাকিং আবার শুরু হয়েছে । সারিবদ্ধ ভাবে রাস্তার দুপাশে ট্রাক, পিকআপ, কাভার্ডভ্যান রাখাতে যাত্রিবাহি ভ্যান- রিকশাতে প্রায় প্রতিদিন দুর্ঘটনা ঘটেই চলেছে। অতিদ্রুত এ ব্যাপারে পদক্ষেপ না নিলে যে কোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। খানজাহান আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ কবির হোসেন বলেন এরকম একটি গুরুত্বপুর্নসড়কে অবৈধ পাকিং করার কোন সুযোগ নেই । করোনার সময়ে সড়কটি পুনরায় অবৈধ পাকিং শুরু হয়েছে, এ ব্যাপারে আবারো অভিযান চালানো হবে প্রয়োজনে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

    বটিয়াঘাটা প্রেসকাব নির্বাচনে এনায়েত সভাপতি ও শাহীন সম্পাদক

    ৮ আগষ্ট ২০২০ শনিবার সকাল ১০ টায় বটিয়াঘাটা বাজার চত্বরে প্রেসকাব নিজেস্ব ভবনে বটিয়াঘাটা প্রেসকাবের পুর্নাঙ্গ কমিটি গঠনের লক্ষে উপস্থিত সদস্যদের মৌখিক সম্মতিতে নির্বাচন সম্পন্ন হয়। নির্বাচন পরিচালনা করেন প্রেসকাবের প্রতিষ্টাতা সভাপতি শেখ আঃ হামিদ। উপজেলায় কর্মরত ২২ জন সাংবাদিক আগামী ২ বছরের জন্য অধ্যাপক এনায়েত আলী বিশ্বাস সভাপতি এবং মহিদুল ইসলাম শাহীন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়। কমিটির অন্যান্য নেতৃবৃন্দ হলেন সিঃ সহ সভাপতি মোঃ নজরুল ইসলাম,সহ সভাপতি হিরামন মন্ডল সাগর, আসাদুজ্জামান উজ্জ্বল, রতন সাহা, শ্রী গৌরদাস বিশ্বাস, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক এস,এম বজলুর রহমান, ইমরান হোসেন সুমন, এ্যাডঃ মোস্তফা বিলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক বাকির হোসেন, ক্যাশিয়ার তরিকুল ইসলাম, আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডঃ সোহেল রানা, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আল আমিন শিকদার, সমাজ কল্যান সম্পাদক জহিরুল ইসলাম , প্রচার সম্পাদক তারেক রহমান খান, দপ্তর সম্পাদক রেজাউল করিম,তথ্য বিষয়ক সম্পাদক তারভির আহমেদ বিশ্বাস, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক সোহরাব হোসেন, সদস্য শেখ জিকু আলম, অমলেন্দু বিশ্বাস, মুরাদ হোসেন হানিফ, মিঠুন শেখ, রবিউল ইসলাম রবি,ফিরোজ শেখ, সৌরভ বাছাড় শুভ,আঃ সামাদ এসময় ৬ জন বিশিষ্ট ব্যাক্তিদের উপদেষ্টা হিসাবে নিযুক্ত করা হয়েছে। এসময় এলাকার অনেক গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

    মোড়েলগঞ্জে ৮০জন মাকে মাতৃত্বকালিন ভাতা বিতরণ করলেন চেয়ারম্যান

    বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এঁর দেওয়া উপহার ও স্থানীয় সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট আমিরুল আলম মিলনের নির্দেশনায় নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নে মাতৃত্বকালিন ৮০জন মাকে ভাতার টাকা ও ১ পেকেট করে শিশুখাদ্য গুড়ো দুধ বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার ইউনিয়ন পরিষদে প্রত্যেক মায়েদের হাতে ভাতার টাকা ও শিশুদের জন্য গুড়ো দুধ তুলে দিয়েছেন নিশানবাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম বাচ্চু। এ সময় অন্যান্যে ইউপি সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এ সময় ভাতা নিতে আসা কয়েকজন মায়েরা বলেন, প্রধানমন্ত্রী মোদেরমত গরীবের কথা সার্বক্ষনিক ভাবেন। প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু কামনা করি।

    যশোরের ১৭ অবৈধ হাসপাতাল বন্ধ

    যশোরে গত ২০ দিনের অভিযানে স্বাস্থ্য বিভাগ ১৭ টি অবৈধ হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ করে দিয়েছে। একসাথে এতগুলো প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে রীতিমতো রেকর্ড সৃষ্টি করেছে যশোর জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন জানিয়েছেন অবৈধ হাসপাতাল কিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

    অবৈধ এসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে গত ২১ জুলাই থেকে অভিযান শুরু করেছে যশোরের স্বাস্থ্য বিভাগ। ৯ আগস্ট পর্যন্ত বন্ধ করা হয়েছে ১৭ টি হাসপাতাল কিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার।

    সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বন্ধ হওয়া হাসপাতাল, কিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলো হলো যশোর শহরের নওয়াপাড়া রোডের ল্যাবজোন হাসপাতাল, দেশ কিনিকের ডায়াগনস্টিক, যশোর ডায়াগনস্টিক সেন্টার, ঘোপ সেন্ট্রাল রোডের সততা ডায়াগনস্টিক সেন্টার, আধুনিক হাসপাতালের ডায়াগনস্টিক কার্যক্রম, মুজিব সড়কের ল্যাব এইড হাসপাতাল, সদরের বসুন্দিয়ার মহুয়া কিনিক, খাজুরার মাতৃভাষা কিনিক এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, ফারিহা হাসপাতাল, মণিরামপুর উপজেলার মুন হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার (হাসপাতাল মোড় শাখা), নিউ প্রগতি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার, নিউ লাইফ ডায়াগনস্টিক সেন্টার, মুন হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার (কুয়াদা শাখা), চৌগাছা উপজেলার কপোতাক্ষ কিনিক, মায়ের দোয়া পাইভেট কিনিক, বিশ্বাস ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও পল্লবী কিনিক।

    যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন জানিয়েছেন, জেলার অবৈধ হাসপাতাল কিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান গ্রহণ করা হয়েছে। প্রতিদিন কোনো না কোনো প্রতিষ্ঠান অভিযান বা পরিদর্শন করা হচ্ছে। প্রতিষ্ঠান মালিকরা স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালকের কাছে নতুন লাইসেন্স বা হালনাগাদ লাইসেন্সের জন্য অনলাইনে আবেদন করেছেন। কিন্তু নানা কারণে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে এখনো অনুমোদন মেলেনি। লাইসেন্স পাওয়ার আগেই প্রতিষ্ঠানগুলো নানা অনিয়মের মধ্যদিয়ে অবৈধভাবে পরিচালনা করা হচ্ছে। চিকিৎসার নামে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে ১৭ প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হয়েছে। এছাড়া আরও ৪টি প্রতিষ্ঠানে নানা দোষত্রুটি সংশোধনের জন্য আল্টিমেটাম হয়েছে। নির্ধারিত সময়ে মালিকপক্ষ ত্রুটি সংশোধনে ব্যর্থ হলে পরবর্তী পরিদর্শনের সময় প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

    উল্লেখ্য, যশোরে জেলায় মোট বেসরকারি হাসপাতাল কিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার রয়েছে ২৬২ টি। এরমধ্যে ২১১ টি অবৈধ।

    সোমবার যশোরে করোনা আক্রান্ত হলেন ৫০ জন

    যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টারে সোমবার যে ৫০ জনের শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া গেছে তার মধ্যে সদর উপজেলার ২৭ জন রয়েছেন।

    এর বাইরে শার্শা উপজেলার চারজন, ঝিকরগাছার ছয়, কেশবপুরের সাত, চৌগাছার চার এবং মণিরামপুর উপজেলার দুইজন রয়েছেন।

    স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, যশোর শহরসহ সদর উপজেলায় আক্রান্তরা হলেন, জেনারেল হাসপাতালের কর্মচারী ওবাইদুল ইসলাম (৫১), দিলীপ (৩৫) ও কামরুজ্জামান (৫০), নীলগঞ্জের আশুরা শারমিন (৪৫), সাইফুল (৫০), যশোর মেডিকেল কলেজের কর্মচারী রমা সাহা (৫০) ও খায়রুল ইসলাম (৪২), ঘোপের রাজু (৪০), সোহেলী (৩৩) ও ফারজানা সাথী (৩৪), খাজুরার আমিনুর (৫৮), শেখহাটির ইসহাক (৬০), ঘোপের সন্ন্যাসী দাস (৫৫), পুরাতন কসবার শাহানারা খাতুন (৪৫), হাসিবুর রহমান (১৭), লামিয়া (১৩) ও হাফিজুর রহমান (৫০), ধর্মতলার রহিমা খাতুন (৩৫), কারবালা এলাকার আব্দুল হক (৫৮), কাজীপাড়া এলাকার ইসমাইল হোসেন (৩৯), পুলিশ লাইনের সোহেল রানা (২৪), সিটি কলেজপাড়ার সোহেল (৩০), পালবাড়ি এলাকার মুস্তাফিজুর রহমান (৪৬), বিমানবন্দর সড়কের নুরুন্নাহার (৩৫), চাঁচড়া এলাকার শফিকুল ইসলাম (২৩), উপশহরের মনিরুজ্জামান (৫৫) এবং সদরে নমুনা দেওয়া ঝিকরগাছার সত্যজিৎ রায় (৩৫)।

    চৌগাছা উপজেলায় আছেন পুরনো পোস্ট অফিস এলাকার শাহানা সালাম টুকু (৬০), আফজাল জামান (৩৮), সাদিপুরের মিনু মিয়া (৩৫) এবং মহেশপুরের শফিকুল ইসলাম (৪৩)। শেষোক্ত ব্যক্তি চৌগাছায় নমুনা দিয়েছিলেন। কেশবপুর উপজেলায় আক্রান্ত হয়েছেন কড়িয়াখালির নারায়ণচন্দ্র দাস (৬০), পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের মনিরুজ্জামান (৩৯), বালিয়াডাঙ্গার আরতিরানি পাল (৩৮), আলতাপোলের আন্নারানি সেন (৫০)), উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মনোয়ারা (৫৮), প্রদীপকুমার বিশ্বাস (৫৬) এবং আবুল হোসেন (৪৫)। অন্যান্যদের নাম-ঠিকানা এখনো জানা যায়নি। শনাক্তদের তালিকা স্থানীয় প্রশাসনের কাছে দেওয়া হয়েছে। বাড়ি লকডাউন, চিকিৎসাসহ অন্যান্য ব্যবস্থা গ্রহণ করছে সংশ্লিষ্টরা।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১