• শিরোনাম

    সাফল্যমণ্ডিত ফুটবল অধ্যায়ের সমাপ্তি ঘোষণা করলেন ইকার ক্যাসিয়াস

    সুজিত মন্ডল | ০৫ আগস্ট ২০২০


    সাফল্যমণ্ডিত ফুটবল অধ্যায়ের সমাপ্তি ঘোষণা করলেন ইকার ক্যাসিয়াস

    অবশেষে ২২ বছরের কীর্তিময় ক্যারিয়ারের ইতি টানলেন স্পেনের জীবন্ত ফুটবল কিংবদন্তি গোলরক্ষক ইকার ক্যাসিয়াস। যিনি অতন্ত্র প্রহরীর মতো দীর্ঘ দিন স্পেন এবং রিয়াল মাদ্রিদের মতো বড় ক্লাবের জাল রক্ষা করেছেন। কিন্তু শারীরিক অসুস্থতা বোধহয় আর সামনের দিকে আগাতে দিল না তাঁকে। গতকাল মঙ্গলবার সকল ধরনের ফুটবল থেকে অবসরের সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন ৩৯ বছর বয়সী ক্যাসিয়াস। তাঁর এই আকস্মিক সিদ্ধান্তে গোটা ফুটবল দুনিয়ায় আলোচনার ঝড় উঠেছে। তাঁর সাফল্যমণ্ডিত ক্যারিয়ারের কথা উল্লেখ করে অনেকেই প্রশংসা ভাসাচ্ছেন ক্যাসিয়াসকে।

    তবে ক্যাসিয়াসের এমন হঠাৎ অবসরে যাওয়ার পেছনে সব থেকে বড় কারণ হলো, গত বছরে হওয়া তাঁর হার্ট অ্যাটাক। ২০১৯ সালের মে মাসে অনুশীলন চলাকালীন সময়েই হার্ট অ্যাটাক হয় ক্যাসিয়াসের। তারপর টানা একবছর সকল ধরনের ফুটবল থেকে ছিটকে যান তিনি। আর এরই মধ্যে ঘোষণা দিলেন, আর ফুটবল খেলবেন না তিনি। শারীরিক অসুস্থতাই হয়তো তাঁকে বাধ্য করেছে এমন কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে। কারণ এমন একটা অ্যাটাকের পর নিজেকে খেলার মাঠে খাপ খাইয়ে নেওয়া খুব কঠিন, আর সেটা যদি হয় ফুটবল তাহলে তো কথাই নেই।


    ফুটবল থেকে বিদায় নেওয়ার বেপারে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে ক্যাসিয়াস লিখেছেন, ‘আজকের দিনটি আমার জীবনের সবচেয়ে কঠিনতম একটি দিন, বিদায় বলার সময় চলে এসেছে।’

    দীর্ঘ ২২ বছরের ক্যারিয়ারের ডানায় ক্যাসিয়াস প্রতিনিয়ত যোগ করেছেন নতুন নতুন সাফল্যের পালক। স্পেন এবং রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে তাঁর উল্লেখযোগ্য সাফল্যে নিজেকে স্মরণীয় করে রেখেছেন। স্পেন জাতীয় দলের গোলরক্ষক হয়ে জয় করেছেন ২০০৮ এবং ২০১২ সালের ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ। এছাড়া ২০১০ সালের ফুটবল বিশ্বকাপে স্পেনের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পেছনে ক্যাসিয়াসের ভূমিকার কথা জানে গোটা ফুটবল বিশ্ব। নিজের সেরাটা দিয়ে পুরো বিশ্বকাপ জুড়ে আলো ছড়িয়েছেন ক্যাসিয়াস।


    এছাড়া রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে ক্লাব ফুটবলেও রয়েছে তাঁর সাফল্যগাথা। গোলরক্ষক হিসেবে রিয়াল মাদ্রিদের মতো বড় ক্লাবের হয়ে ৭৭০’র বেশি ম্যাচ খেলে তিনবার চ্যাম্পিয়নস লিগ এবং পাঁচবার লা লিগা জয়ের গৌরব অর্জন করেছেন ক্যাসিয়াস।

    ফুটবল থেকে ক্যাসিয়ারের এমন আকস্মিক বিদায়ের পর তাঁর সাবেক ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ তাদের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘রিয়াল মাদ্রিদের ফুটবল ইতিহাসে অন্যতম সেরা গোলরক্ষক ক্যাসিয়াস। মাত্র ৯ বছর বয়সে স্প্যানিশ ক্লাবে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। সে এখানে পারফরম্যান্স করেছে এবং ২৫ বছর আমাদের জার্সি আগলে ছিল। এমনকি আমাদের সর্বকালের সেরা অধিনায়কও হয়ে উঠেছিল সে। আজ আমাদের ১১৮ বছরের ইতিহাসের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলারকে পেশাগত খেলোয়াড় হিসেবে গড়ে তুলেছে, সে এমন একজন খেলোয়াড়, যাকে আমরা ভালোবাসি ও প্রশংসা করি। সে এমন একজন গোলরক্ষক, যে তার কাজ দিয়ে রিয়াল মাদ্রিদকে আরও বেশি জনপ্রিয় করেছেন। মাঠ ও মাঠেই বাইরে তার আচরণ অনুকরণীয়।’


    মাত্র ৯ বছর বয়সে ১৯৯০ সালে কনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে রিয়াল মাদ্রিদ্রর সাথে যুক্ত হন ক্যাসিয়াস। সেখান থেকেই তাঁর সাফল্যের যাত্রা শুরু হয়। সেই ধারাবাহিকতায় ১৯৯৯ সালে রিয়াল মাদ্রিদের মূল দলে খেলার সুযোগ পান তিনি। এরপরে আর ফিরে তাকাতে হয়নি ক্যাসিয়াসকে। নিজের পারফরম্যান্স দিয়ে বারবার নিজের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করেছেন তিনি। এছাড়াও রিয়াল মাদ্রিদ ফুটবল ক্লাবের সর্বকালের অন্যতম সেরা অধিনায়ক তিনি। নিজের ক্যারিয়ারের শেষ দিকে ২০১৫ সালে রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে পর্তুগীজ ক্লাব পোর্তোতে যোগ দেন ক্যাসিয়াস। ২০১৯ সালের মে মাসে হার্ট অ্যাটাক এর আগে পর্যন্ত পোর্তোতেই ছিলেন তিনি।

    রিয়াল মাদ্রিদের বড় দলে জায়গা করে নেওয়ার কিছুদিন পরেই স্পেন জাতীয় ফুটবল দলে ডাক পান ক্যাসিয়াস৷ সেই ডাকে সাড়া দিয়ে ২০০০ সালে স্পেন জাতীয় দলের সাথে গোলরক্ষক হিসেবে যুক্ত হন তিনি। স্পেন জাতীয় দলের হয়ে ১৬৭ ম্যাচ জাল রক্ষা করেছেন ইকার ক্যাসিয়াস। দীর্ঘ ১৬ বছরের ক্যারিয়ারে একটি বিশ্বকাপও রয়েছে ক্যাসিয়াসের সাফল্যের ঝুলিতে।

    তাই নিঃসন্দেহে বলা যায়, ফুটবল ইতিহাসে ইকার ক্যাসিয়াস এক গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়ের নাম। যা স্মরণীয় হয়ে থাকবে গোটা বিশ্বের ফুটবলপ্রেমীদের অন্তরে।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    বিদায় ফুটবল ঈশ্বর!

    ২৫ নভেম্বর ২০২০

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১