• শিরোনাম

    কথাসাহিত্যিক ও প্রাবন্ধিক মোঃ সরওয়ার হক চৌধুরীর কবিতা “লেজ কাটা টিকটিকি”

    | ২৩ জুলাই ২০২০


    কথাসাহিত্যিক ও প্রাবন্ধিক মোঃ সরওয়ার হক চৌধুরীর কবিতা “লেজ কাটা টিকটিকি”

    লেজ কাটা টিকটিকি
    ========
    ১.
    লীলাবতীর পেটে দানা বেঁধেছে
    লেজ কাটা টিকটিকির অবৈধ অর্থ,
    ওরে মূর্খ তোদের অপকর্মে
    হয়ে যায় সমাজ ব্যর্থ।

    নব্য সমাজপতি বনে
    লেজ কাটা টিকটিকির অট্টহাসি,
    রাত-দিন শপিং আর ফাইভস্টার হোটেলের গল্প
    হারিয়ে যায় সততার বাঁশি।


    একদিকে নতুন চকচকে পাটের দড়িতে ঝুলছে
    ময়লা পুরাতন কিছু কাপড়,
    অন্যদিকে গলায় ডায়মন্ডের সেট
    মোটা গলায় মারে ফাঁপর।

    লীলাবতীর স্বপ্ন নিজেকে বানাবে আধুনিক
    তাইতো না জেনেও জানার ভাব,
    ছলচাতুরী আর মিথ্যাচারে ভরা
    ব্যস্ততা বেড়েছে অর্জন করতে পাপ।


    লীলাবতী ঘরের বাইরে গেলে যেতে হবে পার্লার
    একদম বেহিসেবী খরচা,
    মধ্যবিত্তের ঘর ভাড়া নেই, সন্তানের পড়াশুনার খরচ নেই
    খাবারের নেই ভরসা।

    নৈতিক মূল্যবোধ হারিয়ে গেছে
    হাজার সমাজপতির,
    সুনীতি আশা করার মতো
    এখনও কিছু মানুষ রয়েছে সেটাই স্বস্থির।


    লোভের বশবর্তী হয়ে
    অপরের অধিকার হরণে ব্যস্ত,
    সে সকল নির্যাতিত মানুষের
    জীবনটার সূর্য যায় অস্ত।

    অনাদৃত মানুষের কষ্ট
    নৈতিক মূল্যবোধ সম্পন্ন মানুষকে করে ব্যথিত,
    চারিদিকে শুধু হাহাকার
    কষ্টে কষ্টে অস্থির চিত্ত।

    তখনই বেরিয়ে পড়ে লেজ কাটা টিকটিকি
    বাড়িয়ে দেয় লোক দেখানো সাহায্যের হাত,
    রাজনীতির মাঠে মারে ছক্কা
    গরিবের কাটে না একটি রাত।

    কান পেতে বসে থাকে
    সমাজে যারা বাটপার,
    টাকার গন্ধে ছুটে যায়
    ওরা বোঝে না মানুষের হাহাকার।

    অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে
    হৃদয়ের মাঝে চাই ইচ্ছা শক্তি.
    নৈতিক মূল্যবোধ সম্পন্ন নির্লোভ জীবন
    আর সত্যের প্রতি ভক্তি।

    ২.
    লাইটের চারপাশে ঘুরছে পোকা
    ছোঁ মেরে গিলে ফেলেছে লেজ কাটা টিকটিকি,
    পেটে খিদে অথচ বলতে লজ্জা
    পকেটে নেই একটি সিকি।

    যদি হয় প্রতিবাদ
    লুকিয়ে পড়ে ধর্মের লেবাসে,
    অবৈধ অর্থটাও কম নয়
    শিরায় শিরায় ভন্ডামী, শয়তানী নিশ্বাসে প্রশ্বাসে।

    ভুল বুঝিয়ে একশ্রেণির মানুষকে দাঁড়িয়ে দেয়
    ন্যায় ও সত্যের বিপরীতে,
    তৈরি হয় সংকট, বেঁধে যায় সংঘর্ষ
    সবুজ ঘাস ভিজে যায় রক্তে।

    লেজ কাটা টিকটিকি অভিনয়ের আশ্রয়ে
    কেঁদে কেঁদে দেয় বক্তৃতা,
    মানুষকে বিভ্রান্ত করে
    ছড়ায় চারিদিকে মিথ্যা।

    সত্য-মিথ্যার দ্বন্দ্বের মাঝখানে
    মানুষের অবস্থা ত্রাহি ত্রাহি,
    একটি মিথ্য বার বার বললে সেটিই সত্য মনে হয়
    তারপরও সত্যের জয় অবশ্যাম্ভাবী।

    অনাদর অবহেলায় বেড়ে ওঠা
    বাংলা মায়ের সন্তান,
    লেজ কাটা টিকটিকির অবৈধ সাম্রাজ্য
    ভেঙ্গে করবে খান খান।

    সত্যে পাওয়া এক ধরনের শক্তি
    আর জনতার ভালবাসা হৃদয়ে হয় অনুভব,
    যতই হোক ষড়যন্ত্র
    বাঙালি জয় করবে সব।

    অবৈধ অর্থের অহমিকায়
    নীতিহীন মানুষের সাথী ভ্রান্তনীতি,
    সমাজে যারা অপকর্মের মূল হোতা
    তাদের সাথে লেজ কাটা টিকটিকির প্রীতি।

    ৩.
    লেজ কাটা টিকটিকির অহংকার
    সে নাকি রাজবংশী,
    চারিদিকে নানান কথা
    সাধারণ মানুষের হাসাহাসি।

    জানালা দিয়ে আকাশ দেখা যায়
    মনে হয় আকাশের জানালা,
    দরজাটা একমাত্র হেঁটে চলার পথ
    দম বন্ধ হওয়ার মতো আটকে থাকা বেদনা।

    আকাশে শুধুই কালো মেঘ উড়ে বেড়ায়
    মাঝে মাঝে বৃষ্টি ঝমঝম,
    নীড় ছাড়া উড়ন্ত পাখিগুলো
    কষ্ট হলেও দৃশ্যটি বড়ই মনোরম।

    মানুষ নিয়ে নেই কোনো ভাবনা
    মানুষ নয় যেন একপাল গরু,
    চারিদিকে শুধুই হাহাকার
    পিপাসায় ভরা হৃদয় যেন মরু।

    লীলাবতীর বড্ড অহমিকা
    আমার গাড়ি, আমার বাড়ি,
    মূর্খতা করেছে গ্রাস
    লোভের রাজ্যে বসবাসরত সেই নারী।

    ন্যায় অন্যায় বোধ নেই
    লেজ কাটা টিকটিকি আছে সবার পাশে,
    অন্যায় অবিচারে ভরা প্রতিক্ষণ
    অভিনয়টা চলছে বারো মাসে।

    ৪.
    যদি মানুষকে করো অবজ্ঞা
    তাহলে করবে মহাপাপ,
    মানুষ হয়ে মানুষকে করলে ঘৃণা
    তোমার জন্য অসংখ্য অভিশাপ।

    হাতে রয়েছে বেহিসেবী অর্থ
    ভালো সময়ে করে অর্থের অপচয়,
    অর্থ দিয়ে সবকিছু কিনতে চাইলে
    জীবনকে কখনও করা যায় না আনন্দময়।

    অর্থের অহমিকায় বেশী কিছু দেখালে
    প্রয়োজনের সময় নিপতিত হবে অভাবে,
    দুঃখের দিনের জন্য করতে সঞ্চয়
    এই মূহুর্তে পরিবর্তন করো স্বভাবে।

    হিংসা আর অবহেলার কারণে
    এই পৃথিবীতে যাকে ক্ষুদ্র মনে করো তুমি,
    সফলতার জন্য কেহই অপ্রয়োজনীয় নয়
    আবার যদি সে হয় দেশপ্রেমী।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮২৯৩০৩১