• শিরোনাম

    লেভানডফস্কি, নয়্যার এবং ডি ব্রুইন উয়েফার বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরষ্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন

    সুজিত মন্ডল | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০


    লেভানডফস্কি, নয়্যার এবং ডি ব্রুইন উয়েফার বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরষ্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন

    ইউরোপীয় ফুটবলের পরিচালনা পরিষদ আজ বুধবার ঘোষণা করেছে, বায়ার্ন মিউনিখ জুটি রবার্ট লেভানডফস্কি ও ম্যানুয়েল নয়্যার এর পাশাপাশি ম্যানচেস্টার সিটির কেভিন ডি ব্রুইনকে গত মৌসুমের জন্য উয়েফার সেরা পুরুষ খেলোয়াড়ের পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হয়েছে।

    আগামী ১ অক্টোবর উয়েফা পুরুষ বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের নামের সাথে উয়েফা বর্ষসেরা মহিলা খেলোয়াড়ের নামও ঘোষণা করা হবে।


    সুইজারল্যান্ডের নিয়নে অবস্থিত উয়েফার সদর দপ্তরে এই অনুষ্ঠানটি আয়োজিত হবে এবং একই সাথে সেখানে এই এই মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বের জন্য ড্র সংগঠিত হবে।

    লেভানডফস্কি এবং নয়্যার তাদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের মাধ্যমে বায়ার্ন মিউনিখের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ে অবদান রেখেছেন। গত মাসে পর্তুগালের লিসবনে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে প্যারিস সেন্ট জার্মেইকে ১-০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করে বায়ার্ন মিউনিখ।


    পোলিশ স্ট্রাইকার লেয়ানডোভস্কি ৪৭ টি ম্যাচে চমকপ্রদ ৫৫ টি গোল করেছেন যেখানে বায়ার্ন চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, বুন্দেসলিগা এবং জার্মান কাপের চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে লেভানডফস্কি সর্বোচ্চ ১৫ টি গোল করেছেন।

    গোলরক্ষক নয়্যারও বায়ার্নের বিজয়ী প্রচারণায় মূল ভূমিকা পালন করেছেন। একা হাতে অতন্দ্র প্রহরীর মতো বায়ার্ন মিউনিখের গোলবার সামলেছেন। অনেক নিশ্চিত গোলের হাত থেকে বায়ার্ন মিউনিখের জালকে রক্ষা করেছেন তিনি।


    অন্যদিকে বেলজিয়ামের প্লেমেকার কেভিন ডি ব্রুইন ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ৩৩ গোল করেছেন। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ফাইনালে ম্যানচেস্টার সিটি লিভারপুলের কাছে পরাজিত হয়ে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে এবং চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নেয় তারা। গত মৌসুমে ম্যানচেস্টার সিটির এই উত্থানে কেভিন ডি ব্রুইন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন।

    বার্সেলোনার ফুটবলার লিওনেল মেসি একটুর জন্যে শর্টলিস্ট থেকে বাদ পড়েছেন। গত মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ এবং ইউরোপা লিগের গ্রুপ পর্বে অংশ নেওয়া ক্লাবের ৮০ জন কোচের সমন্বয়ে একটি জুরির ভোটে মেসি চতুর্থ স্থান অর্জন করেছেন। সেই সাথে ৫৫ জন নির্বাচিত সাংবাদিকও এই ভোটে অংশগ্রহণ করেন।

    ইংলিশ তারকা লুসি ব্রোঞ্জ সম্প্রতি ম্যানচেস্টার সিটির হয়ে স্বাক্ষর করার আগে টানা পঞ্চম মৌসুমে লিয়নকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিততে সহায়তা করার পর মহিলাদের পুরষ্কার জয়ের দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন।

    ফ্রান্সের ডিফেন্ডার ওয়েন্ডি রেনার্ডের সাথে তার লিওনের সতীর্থ ড্যানিশ স্ট্রাইকার পার্নিলি হার্ডারকেও মহিলা বর্ষসেরা ফুটবলারের জন্য মনোনীত তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে, যিনি সম্প্রতি চেলসিতে যোগ দেওয়ার আগে ওল্ফসবার্গকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে উঠতে সহায়তা করেছিলেন।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    বিদায় ফুটবল ঈশ্বর!

    ২৫ নভেম্বর ২০২০

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮২৯৩০৩১