• শিরোনাম

    শিবানী মন্ডলের একগুচ্ছ কবিতা

    | ১৬ জুলাই ২০২১


    শিবানী মন্ডলের একগুচ্ছ কবিতা

    তারপর
    ————
    ভালবাসো না এ কথা বেশ দৃপ্ত কন্ঠেই বলেছিলে,
    অথচ এক ফোঁটাও দূরত্ব বাঁচিয়ে চলোনি।
    অনেক রসাত্বক প্রেমময় আবেদনপূর্ণ কথা হতো আমাদের মাঝে,
    তোমার কথায় আমি স্বপ্ন দেখতাম।
    শুধু স্বপ্ন বললে ভুল হবে,
    অলীক শব্দটাই এর সাথে মানানসই।
    সেই স্বপ্নের সিঁড়ি বেয়ে উঠে যেতাম স্বর্গরাজ্যে।
    যেখানে গড়ে ওঠা প্রেমের বাগিচায় ফুটে আছে অজস্র সুখের ফুল।
    তারপর একদিন তোমার ঘোর কেটে গেল,
    তুমি স্বপ্নের সিঁড়ি সরিয়ে নিলে।
    আমি হঠাৎই দুঃখের ভূমিতে পতিত হলাম।
    সেই থেকে আমার ওষ্ঠাগত প্রাণ।
    নাম মাত্রই বেঁচে আছি তুমি ছাড়া একাকী।

    হাহাকার
    —————–
    তোমার কারণে হয়না কাঁদা এখন
    তোমারই বারণে–।
    তোমাকে খুঁজতে মানা তোমার,
    তাই খোঁজা হয়না আর কোনো কারণে-অকারণে।
    প্রকাশ্যে ভালবাসা অপছন্দ তোমার
    তোমাকে খুব গোপনেই রেখেছি হৃদয় পিঞ্জরে–
    ভাসতে মানা চোখের জলে, ভাসাতে মানা সুখ-সাগরে।
    ডুবতে মানা প্রেম সাগরে, ডুবাতেওমানা মনে
    দেখতেও মানা নয়ন ভরে অথবা চুপিসারে
    এত নিষেধের বলিদানে ক্লান্ত আমি,
    বড্ড দুর্বল লাগে অন্তরে বাহিরে —


    পার্থ তোমার জন্য
    ——————————
    পার্থ, তোমার জন্য বাজি ধরে গোটা যৌবনটাই বন্দী করে রেখে দিলাম।
    কখনও আমার প্রেমের সুধা পান করবে না জানি,
    তবু তোমার জন্যই একেলা থেকে গেলাম।
    জানি না তুমি আলো নাকি আলেয়া
    তথাপি তোমার প্রেমের ঝলকানিতেই মোহিত হলাম।
    পার্থ, তোমার জন্য আজও কাঁদি আমি
    ভাবি তোমাকে অনিবার।।
    যতই ভাবি দেখব না আর ততই মনের গতি দুর্নিবার।
    পার্থ, তুমি ছাড়া অন্য কারো স্পর্শ নেব
    ভাবতেই বুকটা হয়ে যায় এ ফোঁড় ও ফোঁড়।
    যতই নিজেকে বদলাতে চাই, বদলে যেতে চায় না পোড়া অন্তর।।
    পার্থ, আসবে কি তুমি কভু ফিরে আবার?
    হবে কি অবসান এই আশাহীন প্রতীক্ষার?

    কামনা
    —————–
    সুখে ঝরুক আর দুঃখে পড়ুক
    নির্গত অশ্রুর নাম কান্নাই হয়।
    বুকের ভিতর জমানো দীর্ঘশ্বাস
    প্রকাশ্যে আসুক বা গোপনে
    গুপ্ত বেদনারই জানান দেয়।।
    মন যতই ঘুরে আসে
    আশ্রয় কেবল একজনের কাছে চায়।
    মুখের বুলিতে যতই ঘেন্না ফুটুক
    মনটাতো ভালবাসাই ঝরায়।
    যন্ত্রের মতো চালিত শরীর
    বিশ্রাম যাচে প্রেমের শীতল ছায়ায়।


    পূজার আসনে প্রিয়তম

    তোমাকে আর ভাববোনা বললেই না ভেবে পারা যায় না,
    পূজার অর্ঘ্য সাজিয়ে দেবতার পায়ে না দিলে তাতে হয় অকল্যাণ।
    তুমি আমার আরাধ্য ভগবান, আমার প্রেম তোমাকে পূজা দেয়ার অর্ঘ্য,
    পারব না! পারব না! না ভেবে থাকতে তোমায়।।
    তোমার কর্ম হোক পবিত্র কৃষ্ণ পক্ষের গভীর রাতে আমার দুই চোখের গঙ্গাধারায়।।


    ভালবাসি বলব না, ভালবাসা বোঝাতেও চাইনা,
    প্রেমের নামে তোমার করুণাও আর না চাই —

    কিন্তু তোমাকে ভাল না বেসে থাকব এমন উপায় জানা নাই।

    আমার দীর্ঘশ্বাস ধুপের ধোঁয়া ; বাতাসে মিশে তোমাকে সুগন্ধিতে ভরিয়ে রাখুক ;

    আমার নীরব ক্রোধ অগ্নি হয়ে তোমার দুয়ারের মঙ্গল দ্বীপ হয়ে সাত জন্ম জলতে থাকুক।।

    এ জনম, ও জনম কোনো জন্মে যদি নাও পাই —
    তোমাকে চাওয়ার প্রার্থনা যেন টিকে থাকে জন্ম থেকে জন্মান্তর।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১