• শিরোনাম

    ১০বছরের শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ

    সাবিকুন্নাহার কাঁকন | ১২ সেপ্টেম্বর ২০২০


    টাঙ্গাইলের সেই ১০ বছরের ৪র্থ শ্রেনী পড়ুয়া শিক্ষার্থীর খুনী ও ধর্ষকের খোঁজ পাওয়া গেছে। গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যা করে শিশুটিকে ধর্ষণ করেছিলো খুনী ও ধর্ষক মাজেদুর রহমান।গতকাল ১১ই সেপ্টম্বর (শুক্রবার) আদালতের এক জবানবন্দিতে মাজেদুর পুরো ঘটনাটি স্বীকার করেছে।

    খুনী ও ধর্ষক মাজেদুর (২৫) পেশায় কাঠমিস্ত্রি। জবানবন্দি শেষে তাকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।


    গত ৯ই সেপ্টেম্বর (বুধবার) বিকেলের দিকে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার চৌধুরী মালঞ্চ মিরপুর মধ্যপাড়া গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটেছিলো।নিহত শিশুটি সদর উপজেলার মগড়া ইউনিয়নের চৌধুরী মালঞ্চ মিরপুর মধ্যপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ছিলো।

    শিশুটিকে খুঁজে না পাওয়া যাওয়ায় অনেক জায়গায় খোঁজ করার পর বিকেলের দিকে বাড়ির কাছের এক কচুক্ষেতে শিশুর মরদেহটি পরে থাকতে দেখা যায়।খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে।


    বৃহস্পতিবার টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল এ ময়নাতদন্ত শেষ করে শিশুটির পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়। নিহত শিশুটির ভাই বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার থানায় মামলা করেছেন।

    টাঙ্গাইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর মোশারফ হোসেন জানিয়েছেন, লাশ উদ্ধারের পর ঐ গ্রামের চারজনকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ এর এক পর্যায়ে অভিযুক্ত মাজেদুর শিশুকে হত্যার পর ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। পরে সে আদালতে জবানবন্দি দিতে রাজি হয়। শুক্রবার (১১ই সেপ্টম্বর) তাকে টাঙ্গাইল জেলা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠানো হয়েছে। জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সুমন কুমার কর্মকার অভিযুক্তের জবানবন্দি লিপিবদ্ধ করেন।


    জবানবন্দিতে মাজেদুর জানায়, ঘটনার দিন বিকেলে তার লেবুক্ষেতের কাছে শিশুটি আসে।ঠিক সেসময় ধর্ষণের উদ্দেশ্যে শিশুটির গলার ওড়না ধরে টান দেয় সে। শিশুটি চিৎকার করে উঠলে প্যাঁচানো ওড়না দিয়ে তাকে হত্যা করে অতঃপর ধর্ষণ করে লাশটি ফেলে রেখে পালিয়ে যায় মাজেদ।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    বিদায় ফুটবল ঈশ্বর!

    ২৫ নভেম্বর ২০২০

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১