• শিরোনাম

    ৬ষ্ঠ মৌলিক চাহিদা হলো ইন্টারনেট ব্যবহারের অধিকার: আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক

    গাংচিল ডেস্ক | ১৬ জুলাই ২০২১


    ৬ষ্ঠ মৌলিক চাহিদা হলো ইন্টারনেট ব্যবহারের অধিকার: আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক

    আজ ১৬ জুলাই সকাল .৩০ ঘটিকায় স্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠন হ্যাপি ড্রিমস ফাউন্ডেশন এবং সেভ দ্য চিলড্রেন ইন বাংলাদেশ এর সহযোগিতায় ন্যাশনাল চিলড্রেনস টাস্কফোর্স এর আয়োজনে অনুষ্ঠিত অনলাইন প্রতিভা পুরস্কার প্রতিযোগিতা ২০২১ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি বলেন ৫টি মৌলিক চাহিদার পরে ৬ষ্ঠ কোন সামাজিক মৌলিক চাহিদা থাকলে বর্তমানে তা হলো ইন্টারনেট ব্যবহারের অধিকার।

    উল্লেখ্য কোভিড-১৯ মহামারীর কারনে দীর্ঘদিন যাবত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এই সময় শিক্ষার্থীরা বাসায় কিছুটা অবসর সময় পার করছে। এই সময়ে তথ্য প্রযুক্তির ভালো ব্যবহারের মাধ্যমে শিশুদের প্রতিভা বিকাশের লক্ষেই আয়োজিত হয় অনলাইন প্রতিভা পুরস্কার প্রতিযোগিতা ২০২১। গত ২৫ জুন হতে ১৩ জুলাই পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে এই প্রতিযোগিতায় সারাদেশের ৩৫০ এর অধিক শিশু অংশগ্রহণ করেন। নৃত্য, গান, আবৃত্তি, দেয়ালিকা, চিত্রাঙ্কন, উপস্থিত বক্তৃতা, সাধারণজ্ঞান, বিতর্ক প্রতিযোগিতার অংশগুলো সরাসরি ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে সারাদেশের সামনে উপস্থাপনা করা হয়।


    আজ সমাপনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হ্যাপি ড্রিমস ফাউন্ডেশন এর সাধারণ সম্পাদক সুষ্ময় দাস, বাগেরহাট সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ মুছাব্বেরুল ইসলাম, সেভ দ্যা চিলড্রেন ইন বাংলাদেশ এর সিআরজি,সিপি বিভাগের পরিচালক আব্দুল্লাহ আল মামুন। এছাড়াও অনুষ্ঠানে সেভ দ্যা চিলড্রেন ইন বাংলাদেশ এর কর্মকর্তাগণ, হ্যাপি ড্রিমস ফাউন্ডেশন এর সদস্যগণ, এনসিটিএফ এর বিভিন্ন জেলার সদস্য, জেলা ভলান্টিয়ারগণ উপস্থিত ছিলেন।

    অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন আজ থেকে বারো বছর আগে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিলো ৫৬ লাখ, বর্তমানে যা হয়েছে ১২ কোটি। বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যবহারের মাধ্যমে সারাদেশে ৬ লক্ষ উদ্যোক্তা কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন ইন্টারনেট বর্তমানে কোন বিলাসী পন্য নয় এটি আমাদের অতিপ্রয়োজনীয় অনুসঙ্গ। এছাড়াও বর্তমান সরকারের বিভিন্ন সাফল্য তিনি তার বক্তব্যে তুলে ধরেন। এরপরেই শিশুদের নিরাপদ ইন্টারনেট ব্যবহার সংক্রান্ত একট ভিডিও ডকুমেন্টারি তিনি সবার সামনে উপস্থাপন করেন এবং ইন্টারনেট ব্যবহারের নিয়মাবলি বিস্তারিতভাবে বর্ণনা করেন। এরপরই এনসিটিএফ গাইবান্ধা জেলার সভাপতি কে এইচ খান রোহান অনুষ্ঠানের সমাপনী বক্তব্য প্রদান করেন। পুরো অনুষ্ঠানটি আইসিটি ডিভিশন এর পেইজ হ্যাপি ড্রিমস ফাউন্ডেশনের ফেসবুক পেইজ এবং এনসিটিএফ এর কেন্দ্রীয় পেইজ থেকে সরাসরি লাইভের মাধ্যমে সম্প্রচার করা হয়।


    অনুষ্ঠানের শেষে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করা শিশুদের মাঝ থেকে বিজয়ী শিশুদের নাম  ঘোষণা করে আয়োজক জেলাগুলো। অনলাইন প্রতিযোগিতায় বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয়েছে এনসিটিএফ মেহেরপুর জেলা। এছাড়া উপস্থিত বক্তৃতায় প্রথম হয়েছে এনসিটিএফ সাতক্ষীরা জেলার ফারিয়া সুলতানা যুথী , নৃত্য প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়েছে এনসিটিএফ কুষ্টিয়া জেলার প্রিতম সেন, সাধারন জ্ঞান প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়েছে এনসিটিএফ জয়পুরহাটের জেরিন আমান সাবা, সংগীত প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়েছে এনসিটিএফ বাগেরহাটের তকি আহমিদ নাফিস, চিত্রাকংন প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়েছে এনসিটিএফ বাগেরহাট জেলার অন্তর কুমার সেন, আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়েছে এনসিটিএফ শেরপুর জেলার শ্রেয়া সিংহ রায় এবং দেয়ালিকা প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়েছে এনসিটিএফ বাগেরহাট জেলার অন্তর কুমার সেন।

    বিজয়ী শিশুদের জন্য পুরস্কার এবং সনদপত্র কুরিয়ারের মাধ্যমে প্রেরণ করা হবে জানানো হয় অনুষ্ঠানে। সারা বাংলাদেশ থেকে প্রায় দেড় শতাধিক শিশু, তরুণ এবং অভিভাবকবৃন্দ সরাসরি উপস্থিত ছিলো আয়োজটিতে। এছাড়া ফেসবুক এবং ইউটিউব লাইভের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি প্রায় ৩০ হাজার মানুষ উপভোগ করেছেন।


    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আজ শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস

    ১৪ ডিসেম্বর ২০২০

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১